বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বৈঠক শেষে সাংবাদিকেরা এ বিষয়ে জানতে চাইলে হাছান মাহমুদ বলেন, সাংবাদিক সংগঠনের নেতাদের ব্যাংক হিসাব চেয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে আলোচনা করতেই সাংবাদিক নেতারা এসেছিলেন। অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে আলোচনা হয়েছে। সরকার যে কারও হিসাব চাইতে পারে। কিন্তু কেন সংগঠনের নাম দিয়ে চাওয়া হলো, এটিই তাঁদের উদ্বেগের কারণ।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমি তাঁদের বলেছি , অহেতুক যাতে কেউ হয়রানির শিকার না হয়, বিষয়টি তথ্যমন্ত্রী হিসেবে আমি দেখব।’

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘এ হিসাব চাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে সরকারের সঙ্গে সাংবাদিকদের যাতে কোনো ভুল–বোঝাবুঝি না হয়, সেদিকে নজর রাখার জন্য তাঁরাও বলেছেন। আমিও তাঁদের অনুরোধ জানিয়েছি।’

হাছান মাহমুদ বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিকবান্ধব প্রধানমন্ত্রী। সাংবাদিকদের কল্যাণের জন্য, দেখভাল করার জন্য তিনি অনেক কিছু করেছেন। তিনি সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করেছেন। জাতীয় প্রেসক্লাবের ভবন নির্মাণে অনুদান দিয়েছেন। করোনাকালে সাংবাদিকদের এককালীন সহায়তা দিয়েছেন। তিনি সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে ১০ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সাংবাদিকদের যাতে কোনো কারণে কোনো অসুবিধা না হয়, সে জন্য প্রধানমন্ত্রী সব সময় যত্নবান এবং নিয়মিত খোঁজখবর রাখেন। কেউ যাতে সরকারের সঙ্গে সাংবাদিকদের দূরত্ব সৃষ্টি করতে না পারে, সে বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকতে অনুরোধ জানাচ্ছি।’

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন