বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশের মানুষ আওয়ামী লীগের সঙ্গে আছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আছে এবং সরকারের সঙ্গে আছে, নির্বাচনে তারা (বিএনপি) সেটি অনুধাবন করতে পারবে।

মন্ত্রী এর আগে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে টেলিভিশন অ্যান্ড ডিজিটাল প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (টেলিপ্যাব) সঙ্গে বৈঠক করেন।

নারায়ণগঞ্জে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকারকে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টার পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, আসলে বিএনপি অনুধাবন করতে পেরেছে যে তৈমুর আলম খন্দকারের বিজয় লাভের কোনো সম্ভাবনা নেই। এটি অনুধাবন করতে পেরে আগেই তাঁকে বিভিন্ন পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে পরাজয়ের যে গ্লানি, সেটি থেকে মুক্তি পাওয়ার চেষ্টা করছে।

নির্বাচন কমিশন গঠনে সংলাপ নিয়ে বিএনপির বিরূপ মন্তব্যের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, রাষ্ট্রপতি যে সংলাপ করছেন, এর কোনো বাধ্যবাধকতা ছিল না। নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রক্রিয়াটিকে স্বচ্ছ করার জন্যই তিনি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ করছেন। বিএনপি যে কথাগুলো বলে, সেগুলো রাষ্ট্রপতির কাছে গিয়েও বলতে পারে। কিন্তু সেটি না করে ক্রমাগতভাবে বাইরে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে তারা যে গণতান্ত্রিক রীতিনীতিতে বিশ্বাস করে না, সেটিই প্রমাণ করছে।

গণমাধ্যমকর্মী আইন বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির সময় যে কাজ করা হয়েছিল, গণমাধ্যমকর্মীদের শ্রমিক বানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, সেটি নিরসন করা প্রয়োজন ছিল। এ আইনে সেটি নিরসন করা হয়েছে। সব পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেই মূল বিষয় ঠিক রেখেই, অর্থাৎ যে বিষয়গুলো সাংবাদিক সমাজের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছিল, সেগুলো ঠিক রেখেই আইনটি তৈরি করা হয়েছে। তবে এরপর কারও কোনো প্রশ্ন থাকলে, এটি সংসদীয় কমিটিতে উত্থাপন করা যায়। সংসদীয় কমিটি চাইলে সেখানে পরিমার্জন, পরিবর্ধন করতে পারে।

নাট্য প্রযোজকদের উদ্দেশে মন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ‘টেলিভিশন এমন একটি গণমাধ্যম, যেটি মানুষের ওপর বিরাট প্রভাব ফেলে। এ জন্য আপনারা যখন কোনো নাটক, টেলিফিল্ম বা অনুষ্ঠান বানাবেন, সেই ক্ষেত্রে দেশ বিনির্মাণ ও উন্নত জাতি গঠনের লক্ষ্যটি যেন ভাবনায় থাকে, সে অনুরোধ জানাই।’

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন