খালেদার ‘ভুয়া’ জন্মদিনে ভুল করে শুভেচ্ছা পাঠানোয় চীনা দূতাবাসের ‘দুঃখ’ প্রকাশ

বিজ্ঞাপন
default-image

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ‘ভুয়া জন্মদিন’ পালন অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা পাঠানোর জন্য ‘দুঃখ’ প্রকাশ করেছে ঢাকার চীনা দূতাবাস।

ঢাকার চীনা দূতাবাসের পক্ষ থেকে একে একটি ‘ভুল’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে বলে গতকাল রোববার একটি সূত্র জানিয়েছে।

সূত্রটি বার্তা সংস্থা ইউএনবিকে জানায়, বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঢাকার চীনা দূতাবাসের সামনে বিষয়টি উত্থাপন করলে তারা এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে।

একটি কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চীনা দূতাবাস জানিয়েছে যে তারা বিষয়টির সংবেদনশীলতা ধরতে না পেরে ‘ভুলটি’ করেছে এবং এ নিয়ে তাদের পক্ষে যথেষ্ট গবেষণা করা হয়নি।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সূত্রটি জানায়, চীনা দূতাবাস এর জন্য ‘ক্ষমা’ চেয়েছে এবং তারা বিষয়টিতে সতর্ক থাকবে।

চীনা দূতাবাস আরও জানিয়েছে, তাদের দেশের পক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের সঙ্গে সব সময় যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করা হয়। বছরের পর বছর ধরে তারা এই চর্চা করে আসছে।

জন্মদিনে বিএনপির চেয়ারপারসনের কাছে ‘নিয়মিত’ এ শুভেচ্ছা পাঠিয়ে এলেও তারা ‘ভুয়া জন্মদিনের’ বিষয়টি সম্পর্কে অবগত ছিল না বলে জানায়।

কূটনৈতিক সূত্রটি জানায়, জন্মদিনে তারা সাধারণত সব নেতার কাছে ফুল পাঠিয়ে থাকে।

বাংলাদেশে খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালন নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। বিভিন্ন গণমাধ্যমে তাঁর জন্মদিন হিসেবে চারটি দিন পালনের তথ্য পাওয়া যায়।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সমালোচনা রয়েছে যে বাংলাদেশ যেদিন জাতীয় শোক দিবস পালন করে, সেদিন চীনা দূতাবাস খালেদার ‘ভুয়া’ জন্মদিনে তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ফুল পাঠায়।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদা ও শ্রদ্ধার সঙ্গে পালন করা হয়েছে।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বিপথগামী একদল সেনাসদস্য বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তাঁর পরিবারের বেশির ভাগ সদস্যদের হত্যা করে।

বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তাঁর বোন শেখ রেহানা ওই সময় বিদেশে থাকায় এই হত্যাকাণ্ড থেকে বেঁচে যান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন