default-image

‘ক্ষমতার লোভে অন্ধ হয়ে আগুন-সন্ত্রাসীদের বেছে নিয়ে খালেদা জিয়া রাজনীতির ভিলেন হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন’ বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।
আজ মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রমেশচন্দ্র মজুমদার মিলনায়তনে একটি বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এ কথা বলেন বলে তথ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ব্যর্থ পুরুষের হাত থেকে যেমন অ্যাসিড কেড়ে নিতে হয়, তেমনি ক্ষমতা দখলে ব্যর্থ বেগম খালেদা জিয়ার হাত থেকে আগুন–বোমা-পেট্রলবোমা কেড়ে নিতে হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমি মোটেও নিরপেক্ষ নই। আমি মুক্তিযুদ্ধ ও সাম্যের পক্ষে। আমি যেখানেই দাঁড়াব, মুক্তিযুদ্ধ, মানবতা ও গণতন্ত্রের জয়গান গাইব।’
অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নেন অধ্যাপক গোলাম রহমান, লেখক-সাংবাদিক আনিসুল হক, ভোরের কাগজ–এর সম্পাদক শ্যামল দত্ত, প্রমুখ।

বিকেলে একুশের বইমেলার নজরুল মঞ্চে অভিনেত্রী কুসুম সিকদারের প্রথম কবিতার বই নীলের ক্যাফের কবির মোড়ক উন্মোচন করেন তথ্যমন্ত্রী। এ সময় বাংলাদেশের অদ্ভুত প্রকৃতির ভালবাসার উদাহরণ হিসেবে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা বিস্মিত হয়ে রাজাকার, যুদ্ধাপরাধী, বঙ্গবন্ধুর খুনি, একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলাকারী এমনকি আগুন-সন্ত্রাসীদের জন্যও ভালোবাসা দেখতে পাই। অসংখ্য পোড়া মানুষের কান্নার প্রতি যার ভ্রুক্ষেপ নেই, তার মনে মানুষের জন্য কোনো ভালোবাসা নেই।’
হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘রাজাকারের সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধার, যুদ্ধাপরাধীর সঙ্গে দেশপ্রেমিকের বা আগুন-সন্ত্রাসীর সঙ্গে সরকারের কোনো মিটমাট হয় না। জয়-পরাজয় হয়। রাজাকার-যুদ্ধাপরাধীদের মতো আগুন-সন্ত্রাসীদেরও আত্মসমর্পণ ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। বাংলার মানুষ আগুন-সন্ত্রাসীদের কাছে পরাজয় স্বীকার করবে না।’
সন্ধ্যায় এফডিসিতে এস এ হক অলীকের পরিচালনায় নির্মিতব্য পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র আরো ভালোবাসবো তোমায়–এর মহরতে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন তথ্যমন্ত্রী।
পাট ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, সাংসদ খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পী, এফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম হারুন অর রশীদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র বিভাগের চেয়ারম্যান শফিউল আলম ভুঁইয়া বিশেষ অতিথি হিসেবে মহরতে উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন