গণতন্ত্রের সব পথ রুদ্ধ হয়ে গেলে দেশে চরমপন্থীর উত্থানের পথ সুগম হবে বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন। তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি, সরকার অত্যন্ত সূক্ষ্মভাবে খালেদা জিয়ার প্রাণনাশের প্রচেষ্টায় জীর্ণ পথ গ্রহণ করেছে। আমরা অবিলম্বে গুলশান কার্যালয়ে খাবার প্রবেশে সব বাধা বন্ধের দাবি জানাচ্ছি।’
আজ সোমবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে খন্দকার মাহবুব এসব কথা বলেন। বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে খাবার প্রবেশে বাধা দেওয়া প্রসঙ্গে আইনজীবী সমিতি এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।
সংবাদ সম্মেলনে খন্দকার মাহবুব বলেন, ‘যাতে অবাধে রাজনৈতিক নেতা-কর্মীরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারেন, সে গণতান্ত্রিক অধিকারের দাবি জানাচ্ছি। এর সঙ্গে সরকারকে সতর্ক করে দিতে চাই, গণতন্ত্রের সব পথ রুদ্ধ করে দিলে স্বাভাবিকভাবে দেশে চরমপন্থী উত্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। এটি কোনো অবস্থায়ই কারও কাম্য হতে পারে না।’
খন্দকার মাহবুব বলেন, ‘আমরা অবিলম্বে জাতিসংঘসহ সব মানবাধিকার সংগঠনের এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। কেননা খাবার প্রবেশে বাধা দিয়ে সরকার খালেদা জিয়াসহ অন্যদের মৌলিক অধিকার খর্ব করে প্রাণনাশের চেষ্টা চালাচ্ছে।’
সংবাদ সম্মেলনে আইনজীবী সমিতির সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকন ও জ্যেষ্ঠ সহকারী সম্পাদক নাসরিন আক্তার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন