বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আমীর খসরু বলেন, ‘বোয়ালখালী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ওরফে বাচার মতো শত শত মানুষকে গুম-খুন করে সরকার অব্যাহতভাবে ক্ষমতায় থাকার চেষ্টা করছে। এই সরকার গুম, খুন, হত্যা ও মিথ্যা মামলার মাধ্যমে একটা দখলদার সরকারে পরিণত হয়েছে। যারা বাচা চেয়ারম্যানকে গুম করেছে, তাদের রেহাই দেওয়ার সুযোগ নেই। এসব হত্যাকাণ্ড নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করে তদন্তের মাধ্যমে বিচার করা হবে। গুম-খুনের বিচার হবে জনতার আদালতে। গুম-খুন করে কেউ রেহাই পাবে না, বিচার হবেই।’

২০১০ সালের ৮ নভেম্বর ঢাকার গাজিপুর থেকে নিখোঁজ হন নজরুল ইসলাম। তিনি বোয়ালখালী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও আহল্লা করলডেঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন।

আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘বর্তমান অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু হয়েছে। এই আন্দোলনের মাধ্যমে তাদের পতন ঘটিয়ে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা হবে। বাচা চেয়ারম্যানের পরিবার ও দেশের জনগণের আগামী দিনের নিরাপত্তার জন্য এবং গণতন্ত্র রক্ষার জন্য তাদের বিচার হতে হবে।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সাবেক মন্ত্রী জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্যসচিব আবুল হাশেম বক্কর, বোয়ালখালী উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক ইসহাক চৌধুরী, সদস্যসচিব ও নজরুল ইসলামের ভাই হামিদুল হক মান্নান প্রমুখ।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন