গুম হওয়া ব্যক্তিদের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিন: সরকারকে ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
ফাইল ছবি

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গুম হওয়া পরিবারের অসহায়ত্বের দায় সরকারের, তাই সরকারকেই এই দায় নিতে হবে।
আজ সোমবার আন্তর্জাতিক গুম প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে  বিএনপি মানবাধিকার সেলের উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, ‘সরকার বলছে, এখানে গুম হয় না। তা হলে যাঁদের পাওয়া যাচ্ছে না, তাঁরা গেলেন কোথায়? তাঁদের খুঁজে বের করে পরিবারের কাছে ফেরত দিতে হবে। এটা অবশ্যই সরকারকে করতে হবে। অন্যথায় জনগণের আদালতে আপনাদের বিচার করা হবে।’

গুম হওয়া পরিবারের সদস্যদের কেউ কেউ তাঁর বাবার ছবি, কেউ তাঁর ভাইয়ের ছবি, কেউ তাঁর সন্তানের ছবি, কেউ তাঁর স্বামীর ছবি হাতে নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন।
মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই পরিবারগুলোর অসহায়ত্বের দায় কে নেবে? এখানে অনেকে আছেন, ৯–১০ বছর ধরে তাঁদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। আমাদের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী, ঢাকার কমিশনার চৌধুরী আলমসহ আজকে আমাদের ৫০০–এর অধিক নেতা-কর্মী গুম হয়ে গেছেন ৭–৮–৯ বছর ধরে। ইলিয়াস আলীর মেয়ে এখন বড় হয়েছে, সে এখনো দরজার কাছে দাঁড়িয়ে থাকে যে কখন তার বাবা ফিরে আসবেন। বাবা ফিরে আসেন না।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘এমন দেশ, এমন রাষ্ট্র আমরা বানালাম, যেখানে আমার সন্তানেরা নিখোঁজ হয়ে যাবে, তাদের হদিস কেউ খুঁজে পাবে না। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর লোকেরা তাদের তুলে নিয়ে যাবে, সরকার তার কোনো জবাব দেবে না। আমরা তো আমাদের চোখের পানি রাখতে পারি না। অসহায়ত্বের বেদনার যন্ত্রণা আমাদের কুরে কুরে খায়। তোমাদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে বলতে চাই, আমরা আর কিছু না করতে পারি, আমরা শুধু তোমাদের পাশে দাঁড়িয়ে চিৎকার করে বলতে চাই যে আমার ভাইকে, আমার বাবাকে, আমার স্বামীকে ফিরিয়ে দাও। আমরা এখান থেকে মুক্তি চাই।’

ফখরুল বলেন, ‘এই ফ্যাসিস্ট আওয়ামী লীগ সরকার শুধু ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য বেআইনিভাবে অবৈধভাবে গোটা জাতিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। আমাদের সংবিধানকে ধ্বংস করেছে, গণতান্ত্রিক অধিকারগুলো ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিয়েছে। অর্থনীতিকে ধ্বংস করেছে, গোটা প্রশাসনকে দলীয়করণ করেছে। সে জন্য আমাদের উচিত হবে সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই সরকারকে রাজনৈতিকভাবে পরাজিত করে একটা সত্যিকার অর্থেই জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করা। যে সরকার এই অসহায় বাচ্চাগুলোর, এই পরিবারগুলোর যাঁরা হারিয়ে গেছেন, তাঁদের বের করে নিয়ে আসার জন্য তারা কাজ করবে।’

বিএনপির মানবাধিকারবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, গুম হওয়া মো. সোহেলের মেয়ে সাবা, মো. কাউসারের মেয়ে মীম, সেলিম রেজার বোন রেহানা আখতার মুন্নী, সাজেদুল ইসলাম সুমনের বোন আফরোজা ইসলাম আখি ও খালেদ হোসেনের মেয়ে শাম্মী আখতার নিপা বক্তব্য দেন।