default-image

চট্টগ্রামে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষের পর দলটির মহানগর কমিটির আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ সোমবার সন্ধ্যায় তাঁর ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠান নগরীর প্রবর্তক এলাকার ট্রিটমেন্ট সেন্টার থেকে বিএনপির এই নেতাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নগর পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, শাহাদাত হোসেনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও হুমকির অভিযোগে ফৌজদারি মামলা রয়েছে। এ ছাড়া সোমবার বিকেলে পুলিশের ওপর হামলা, রাস্তায় আগুন ও ভাঙচুরের ঘটনায়ও তিনি জড়িত। এ জন্য তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারের পর শাহাদাতকে কোতোয়ালি থানায় নেওয়া হয়। গত জানুয়ারি মাসে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হন ডা. শাহাদাত। পরে নির্বাচন কমিশনার এবং বর্তমান মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরীকে আসামি করে আদালতে মামলা করেন তিনি।

শাহাদাতের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলাটি ‘ষড়যন্ত্রমূলক’ বলে দাবি করেছেন নগর বিএনপির সাবেক দপ্তর সম্পাদক ইদ্রিস আলী। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘যিনি মানুষকে বিনা টাকায় চিকিৎসা করেন, সাহায্য করেন, তিনি চাঁদাবাজি করবেন, তা বিশ্বাসযোগ্য নয়। সব পুলিশের ষড়যন্ত্র। আন্দোলন দমিয়ে রাখতে সব করছে পুলিশ।’

বিজ্ঞাপন
default-image

এর আগে বিকেলে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নগর বিএনপি বিক্ষোভ মিছিল বের করলে পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এতে কোতোয়ালি থানার ওসিসহ পুলিশের ছয়জন সদস্য এবং বিএনপির নেতা-কর্মীসহ ২১ জন আহত হন। নগর মহিলা দলের সভানেত্রীসহ ১৫ জনকে আটক করে পুলিশ। সংঘর্ষ চলাকালে বিএনপির নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনের সড়ক ঘণ্টাখানেক বন্ধ থাকে।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন