বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ কারও দয়ায় পাওয়া নয় উল্লেখ করে তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এক সাগর রক্তের বিনিময়ে কেনা বাংলাদেশ। এই বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার। এই বাংলাদেশ খুনি জিয়াউর রহমানের বাংলাদেশ নয়। এই বাংলাদেশ বেগম জিয়া, খুনি রাজাকারের বাংলাদেশ নয়। এই বাংলাদেশ একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার খলনায়ক খুনি তারেক রহমানের নয়। এই মাটি দেশের বীর বাঙালির মাটি। বাংলার মাটিতে দাঁড়িয়ে একটি শপথ উচ্চারণ করতে চাই—খুনি জিয়ার মরণোত্তর বিচার বাংলার মাটিতে না হওয়া পর্যন্ত সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে।’

বর্ধিত সভায় উপস্থিত নেতা-কর্মীদের মধ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি হস্তান্তর করেন প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান। এ সময় তিনি বলেন, পবিত্র ভূমি চন্দ্রিমা উদ্যানে খুনি জিয়া নামের কবর থাকতে পারে না। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা উন্নয়নের মহাসড়কে হাঁটছি। আমাদের যেতে হবে সমৃদ্ধির সর্বোচ্চ শিখরে। সমৃদ্ধির মহাসড়কে যেতে সবাইকে ঐক্যবব্ধ হয়ে দেশ সেবায় আত্মনিয়োগ করতে হবে।’

মুরাদ হাসান আরও বলেন, ‘আমার নির্বাচনী এলাকার ভোটার আমার মনিব। আমি তাঁদের সেবক। আপনাদের সেবা করতে চাই সেবক হিসেবে। এটা আমার দায়িত্ব। এর বাইরে আমার কোনো দায়িত্ব নেই। জনগণের সেবক হয়ে বেঁচে থাকতে চাই। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে, চেতনা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার জন্য জীবন বিলিয়ে দিতে পারব।’

সভায় সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন, সহসভাপতি মাহবুবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন