‘জীবিকার আগে জীবনের সুরক্ষা, অতীতে আমরা জাতি হিসেবে কখনো কখনো কঠিন সময় অতিক্রম করেছি’ উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনার মানবিক ও দক্ষ নেতৃত্বে এ কঠিন পরীক্ষায়ও উত্তীর্ণ হব ইনশা আল্লাহ। এ আঁধার কেটে যাবে, সুদিন আসবে, তবে তার আগে ঘরে ঘরে সতর্কতার দুর্গ গড়ে তুলতে হবে।’

ত্রাণসামগ্রী দিতে গিয়ে যাতে নিম্ন আয় ও ভাসমান মানুষ কোনোভাবেই বাদ না পড়ে, এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও দলের নেতা-কর্মীদের যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রয়োজনে ঘরে ঘরে গিয়ে ত্রাণসামগ্রী পৌঁছে দিতে হবে। এবং শতভাগ মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে মানুষকে সচেতন করতে হবে।

বিষফোড়া হয়ে আছে সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদ
২০১৬ সালের আজকের দিনে গুলশান হোলি আর্টিজান বেকারিতে মহান মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক চেতনার বিরুদ্ধে উগ্রবাদীদের তৈরি একটি দুষ্ট ক্ষত উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ইতিমধ্যে সাম্প্রদায়িকতার বিষদাঁত ভেঙে দেওয়া হলেও এ অপশক্তি একেবারে নির্মূল হয়েছে, তা বলা যাবে না। দেশের উন্নয়ন অভিযাত্রায় বিষফোড়া হয়ে আছে সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদ।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, উগ্রবাদের বিরুদ্ধে দেশের জনগণের মাঝে একটি ঐক্য তৈরি হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে সামাজিক প্রতিরোধ তারই প্রমাণ।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন