default-image

জাতীয় সংসদের কার্যক্রম নিয়ে টিআইবি যে প্রতিবেদন দিয়েছে, তা তথ্যভিত্তিক নয় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  ওবায়দুল কাদের। তিনি আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর সেতু ভবনের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারিত অংশের উদ্বোধন শেষে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

দুর্নীতিবিরোধী সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) গতকাল বুধবার গবেষণা প্রতিবেদন ‘পার্লামেন্ট ওয়াচ’ প্রকাশ করে। সেখান বলা হয়, একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম বছরের পাঁচ অধিবেশনে কোরাম সংকটে যে সময় ব্যয় হয়েছে, তার অর্থমূল্য ২২ কোটি টাকার বেশি। একাদশ সংসদের পাঁচটি অধিবেশন নিয়ে টিআইবি এ গবেষণা প্রতিবেদন তৈরি করে।

বিজ্ঞাপন

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান গতকালের অনুষ্ঠানে বলেন, ‘প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত নির্বাচনের সংস্কৃতি আমাদের দেশে প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছে। তারই প্রভাব আমরা দেখতে পাচ্ছি জাতীয় সংসদের মধ্যে। এরই ধারাবাহিকতায় একাদশ সংসদে একদলের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা সৃষ্টি হয়েছে। যার ফলে সংসদীয় কার্যক্রমে একচ্ছত্র ক্ষমতার সুযোগ প্রাতিষ্ঠানিক রূপ লাভ করেছে।’

টিআইবির এ বক্তব্যের বিরোধিতা করে আজ ওবায়দুল কাদের বলেন, বিরোধী দলগুলোর সদস্য সংখ্যা কম হলেও তাদের পর্যাপ্ত সময় দেওয়া হচ্ছে, সকল কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছে। তিনি বলেন, জনগণের ভোট নিয়ে তারা যদি আসনসংখ্যা বাড়াতে না পারে তার দায় তো সংসদের নয়।

বিজ্ঞাপন

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘এমপিদের মধ্যে কেউ আইনজীবী, চিকিৎসক আবার কেউ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। জনগণের আস্থা ও সমর্থন নিয়ে তাঁরা সংসদে এসেছেন এবং বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছেন, তা তো অপরাধ নয়।’

উপনির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীদের ভয়- ভীতি দেখানো হচ্ছে—বিএনপির এমন অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা তাদের চিরাচরিত অভিযোগ। বিএনপি উপনির্বাচনে শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকার ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকবে—তা জনগণ বিশ্বাস করতে পারছে না। কাদের বলেন, ‘বিএনপি শেষ পর্যন্ত ভোটের মাঠে থাকুক তা আমরাও চাই, জনগণ যে রায় দেবে তা আমরা মেনে নেব।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, অপ্রয়োজনীয় প্রকল্প গ্রহণ ও নির্মাণ ব্যয় কমিয়ে কাজের গুণগত মান বৃদ্ধি করতে হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0