default-image

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) কাদের বলেছেন, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থী দেবে জাতীয় পার্টি। আর এই নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা মাঠে থাকবেন।

ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজি লিটনের নেতৃত্বে বিএনপির অর্ধশত নেতা-কর্মী এবং জাগপার প্রেসিডিয়াম সদস্য হাসমত উল্লাহর নেতৃত্বে দুই শতাধিক নেতা-কর্মী জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন আজ সোমবার দুপুরে। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে এই যোগদান অনুষ্ঠান হয়। এ সময় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বিএনপি ও জাগপা থেকে জাতীয় পার্টিতে যোগ দিতে আসা নেতা-কর্মীদের স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য দেন।

জি এম কাদের বলেন, দেশের প্রধান তিনটি দলের মধ্যে জাতীয় পার্টি সাধারণ মানুষের কাছে সম্ভাবনাময় পার্টি। দেশের মানুষ মনে করে, জাতীয় পার্টিই দেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারবে। তাই জাতীয় পার্টির কাছে দেশবাসীর প্রত্যাশা অনেক বেশি। তাই দেশবাসী সরকারের বিকল্প হিসেবে জাতীয় পার্টির ওপরেই ভরসা রাখে। কারণ, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শাসনামলেই দেশের মানুষ বেশি অধিকার ভোগ করেছে।

কাদের বলেন, উন্নয়ন, সুশাসন, নিরাপত্তা, শান্তি ও সম্প্রীতির প্রশ্নে জাতীয় পার্টির শাসনামলই অনন্য। জাতীয় পার্টি কারও ব্যক্তিগত সম্পত্তি নয়, জাতীয় পার্টি কারও জমিদারি নয়। জাতীয় পার্টি একটি পরিবার। এখানে কারও ভুলত্রুটি হলে তা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেই মীমাংসা করা হবে।

এ সময় জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান বলেন, যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাচিত ভিপির ওপরে বারবার হামলা করছে, তা সরকারকেই খতিয়ে দেখতে হবে। প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্ররাজনীতির স্বাধীনতা থাকতে হবে। যাতে আগামী দিনে শিক্ষিত প্রজন্ম রাজনীতির নেতৃত্বে আসে।

আজকের অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবু হোসেন, সাহিদুর রহমান, এস এম ফয়সল চিশতী।

দুই সিটির ভোটের আবেদনপত্র
ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের আসন্ন সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে জাতীয় পার্টি মনোনয়ন-আগ্রহীদের মধ্যে কাল মঙ্গলবার থেকে ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত মনোনয়নের আবেদনপত্র বিতরণ করা হবে। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানীর কার্যালয় থেকে আবেদনপত্র সংগ্রহ করে ২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে তা পূরণ করে জমা দিতে হবে। ২৯ ডিসেম্বর চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করে ৩০ ডিসেম্বর প্রার্থীদের তালিকা ঘোষণা করা হবে। প্রার্থীরা ৩১ ডিসেম্বর সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল করবেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0