বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জাসদের এই নেতা বলেন, ‘বটতলা কেমন যেন অচেনা হয়ে যাচ্ছে। স্বাধীনতাসংগ্রামের একজন কর্মী হিসেবে বটতলায় এলে মনে হয়, এ যেন ছাত্র আন্দোলন ধ্বংসস্তূপ, পুরাকীর্তি। আজকের বটতলা বোবা, নীরব।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইনু বলেন, ‘জাতি বোবা বটতলা, নীরব বটতলা দেখতে চায় না। জাতি চায় অতীতের মতোই সকল অন্যায়-অনাচারের বিরুদ্ধে বটতলা প্রতিবাদী হবে, বটতলা গর্জে উঠবে। বটতলার অর্জন স্বাধীনতা, স্বাধীন বাংলাদেশ, গণতন্ত্র। স্বাধীন বাংলাদেশের চিরশত্রু পাকিস্তানপন্থী রাজাকারী শক্তির বিরুদ্ধে, মুক্তিযুদ্ধবিরোধী শক্তির বিরুদ্ধে, গণতান্ত্রিক চেতনার সবচেয়ে বড় দুশমন সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে বটতলাকে গর্জে উঠতে হবে।’

ইনুর ভাষ্য, ছাত্ররা আজ জনগণের কণ্ঠস্বর, জাতির বিবেক হতে চায় না। শুধু ডিগ্রির মালিক হতে চায়। ছাত্রসংগঠনগুলো ছাত্রদের অধিকার আদায়, দেশের সংকটে অসহায়-নিরুপায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর বদলে রাজনৈতিক ক্ষমতার খুদে অংশীদার ও ভাগীদার হতে ব্যস্ত। ছাত্রসংগঠনগুলো পরিণত হয়েছে নেতা-নেত্রীদের জিন্দাবাদ বাহিনী, লাঠিয়াল বাহিনী ও শিশু শ্রমিকে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, কার্যকরী সভাপতি রবিউল আলম, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন