default-image

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ‘তারেক তারেক জিন্দাবাদ দিয়ে লাভ হবে না। আপনারা বরং চিলমারি থেকে টেকনাফ পর্যন্ত বিভিন্ন জায়গায় ঘোরেন, দেখেন জনগণের আন্দোলন কীভাবে গড়ে ওঠে।’

জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া মিলনায়তনে আজ শনিবার এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ‘বিজয়ের ৪৯ বছর: জনতার গণতন্ত্র ও জনগণের ভোটাধিকার’ শীর্ষক ওই আলোচনা সভার আয়োজন করে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা)।

বিএনপির উদ্দেশে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘বিএনপিকে বলি আপনারা বেরিয়ে আসেন। শুধু বক্তৃতা দিয়ে লাভ নেই। খালেদা জিয়া গেটে (গুলশানের বাড়ির) বসলে আন্দোলনে গতি দেবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আজকে বিএনপি যদি সত্যিই চায় যে ক্ষমতার পটপরিবর্তন হোক, তাহলে বিএনপির দায়িত্ব অনেক বেশি।…তারেকের স্তুতি গেয়ে আপনারা কেউ ক্ষমতায় আসতে পারবেন না। আপনারা যদি সত্যিকার অর্থে ক্ষমতায় আসতে চান, জনগণের ক্ষমতা প্রতিষ্ঠিত করতে চান, মাঠে নামতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

মাঠে নামতে হলে কাকে নিয়ে নামবেন, এমন প্রশ্ন তুলে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আমার মতে, জাইমাকে (তারেক রহমানের মেয়ে) নিয়ে নামতে হবে, তারেককে নিয়ে নয়। তারেককে কোনো দোষ দিচ্ছি না। কৌশল বলেও একটা কথা আছে। আমরা বললেই তাঁর (তারেক রহমান) বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার হবে না। একমাত্র গণতন্ত্রের বিজয় হলেই তারেক দেশে ফিরতে পারবেন, হয়তো একদিন প্রধানমন্ত্রীও হবেন।’

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে ঘরের মধ্যে আবদ্ধ না থেকে গুলশানের বাড়ি ফিরোজার গেটের সামনে প্রতিদিন ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত বসতে হবে। রোদের মধ্যে বসে থাকতে হবে। বিকেলে বসতে হবে। অন্তত জনগণ যাতে দেখতে পায়, তাদের নেত্রীকে অন্যায়ভাবে আটকে রাখা হয়েছে। উনি ওখানে বসে থাকলেই আন্দোলনের গুরুত্ব বাড়বে। সঙ্গে সঙ্গে এখানে জাইমা যদি আসেন, তাহলে তাঁকে নিয়ে সারা দেশ ঘুরে বেড়াবেন, তখনই দেখবেন যে জোয়ার কীভাবে ওঠে।’

জাগপা সভাপতি খন্দকার লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, জাগপার প্রেসিডিয়াম সদস্য খন্দকার আবিদুর রহমান, আ স ম মিসবাহ উদ্দিন ও রকিব উদ্দিন চৌধুরী বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জাগপা সাধারণ সম্পাদক এস এম শাহাদাত।

মন্তব্য করুন