ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে পুরো বিশ্বে অস্থিরতা বিরাজ করছে। সেই সুযোগ নিয়ে বাংলাদেশেও নানাভাবে অস্থিরতা তৈরির অপচেষ্টা চলছে বলে দাবি করেন তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, এর মধ্যেও সম্প্রতি প্রকাশিত বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২০ সালের তুলনায় বাংলাদেশে ২০২১ সালে দারিদ্র্য শূন্য দশমিক ৬ শতাংশ কমেছে। দারিদ্র্য যেখানে আগে ১২ দশমিক ৫ শতাংশ ছিল, সেটি এখন ১১ দশমিক ৯ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিশ্বব্যাংক এত যাচাই–বাছাই করে রিপোর্ট করে আমাদের প্রশংসা করেছে। বিশ্বে অস্থিরতার মধ্যেও বাংলাদেশ অকল্পনীয় প্রবৃদ্ধি অর্জন করছে—এ বিষয়গুলো তুলে ধরার জন্য সাংবাদিকদের অনুরোধ জানাই। কারণ, সাফল্যের চিত্র আমাদের ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখায়। আর স্বপ্নহীন মানুষ যেমন এগোতে পারে না, স্বপ্নহীন জাতিও এগোতে পারে না। সরকারের সমালোচনা থাকবে কিন্তু পাশাপাশি জাতিকে এগিয়ে নিতে সাফল্যের চিত্রও তুলে ধরতে হবে।’

চবিসাফ, ঢাকার সভাপতি শাহীন উল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন মহাসচিব আইয়ুব ভুঁইয়া। এ সময় সাংসদ ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মুহম্মদ শফিকুর রহমান, আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, একাত্তর টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল বাবু, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, আবদুল জলিল ভুঁইয়া, জাতীয় প্রেসক্লাব সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি ওমর ফারুক, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেন, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন