এ সময় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, নিপুণ রায় চৌধুরীসহ কেরানীগঞ্জ উপজেলা দক্ষিণ শাখার নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। এ ছাড়া সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়ার অভিযোগে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি আবদুস সালামের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায় কর্মসূচির আয়োজক নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম।

নজরুল ইসলাম বলেন, ‘এই সরকার জনসমর্থনে টিকে নেই। টিকে আছে প্রশাসনের মাধ্যমে। বিএনপির নেতা–কর্মীদের আক্রমণ করা হলে, তার কোনো বিচার হয় না। জনগণের ভোটে আওয়ামী লীগ সরকার গঠিত হয়নি; হয়েছে পুলিশ প্রশাসনের ভোটে।’

মানববন্ধনে নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘আমরা আবার রাজপথে নামব। ওয়ান পার্টি ভোট আর হতে দেওয়া যাবে না। আর সেই সুযোগ নেই।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই সরকার তো যাবেই। তত্ত্বাবধায়ক সরকারও আসবে। তারা তিন মাস থাকবে। আর এই সময়ে সব ডিসি-এসপি, সচিবদের পরিবর্তন করা হবে।’

নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের আহ্বায়ক সেলিমা রহমান মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন। বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির যুববিষয়ক সহসম্পাদক নেওয়াজ আলীর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির স্বেচ্ছাসেবাবিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী, তথ্যবিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী প্রমুখ।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন