default-image

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বর্তমান প্রশাসন-পুলিশ দিয়ে কিছু হবে না। নারীদের রক্ষার জন্য নাগরিক সমাজকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে পাড়া-মহল্লায় পাহারা বসাতে হবে।

‘জিয়াউর রহমান ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার এবং ইতিহাস বিকৃতির’ প্রতিবাদে স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত মানববন্ধন রিজভী এ কথা বলেন। আজ সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এই কর্মসূচি পালিত হয়।

বিজ্ঞাপন

রিজভী অভিযোগ করেন, ধর্ষণ, নারী নির্যাতনের সঙ্গে যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা জড়িত থাকছেন। প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তায় সারা দেশে ‘ধর্ষক’ বাহিনী গড়ে উঠেছে। এদের হাত থেকে নারীদের রক্ষা করতে হবে।

রিজভী বলেন, এমসি কলেজে তরুণী ধর্ষণ, পাহাড়ি নারী ধর্ষণের ঘটনাগুলো পৈশাচিক ও বর্বর। এ ধরনের ঘটনা এখন নিত্য নৈমিত্তিক। যা ঘটছে তা রক্ত ও হাড় শীতল করে দেয়। নোয়াখালীতে যা ঘটেছে তা সব বর্বরতাকে হার মানিয়ে দেয়। মানবতার বিরুদ্ধে এত বড় অপরাধ আর হতে পারে না।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, একের পর এক অপকর্ম ঘটছে। আর বিএনপি মানববন্ধন, সমাবেশ করছে। এখন আর বক্তৃতা দিয়ে হবে না। জনগণ দেখতে চায় বিএনপির এর প্রতিবাদে কি করছে। এখন গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে হবে।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান। আরও বক্তব্য দেন বিএনপির ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভুঁইয়া।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0