বিজ্ঞাপন

‘ফারাক্কা দিবস’ উপলক্ষে আজ রোববার ভার্চ্যুয়াল নাগরিক আলোচনা সভায় ডা. জাফরুল্লাহ এ কথা বলেন।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘গত কয়েক দিন যাবৎ গাঁজায় শিশু ও মানুষ হত্যা, নির্মমতা, নিষ্ঠুরতা চলছে, আমরা প্রতিবাদ করতে পারিনি। মুসলিম রাষ্ট্র কেউ কেউ ইহুদিদের নির্মমতায় নীরব, এ সময়ে মুসলিম রাষ্ট্র নিজেদের ঝগড়া ভুলে গিয়ে এক হয়ে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর ও দাঁতভাঙা জবাব দেওয়ার দরকার ছিল।

ইসরায়েলিরা হামলার ক্ষেত্রে শিশু ও সংবাদ মিডিয়া কাউকে বাদ দিচ্ছে না।
জাফরুল্লাহ অভিযোগ করেন, ইসরায়েলের মদদদাতা ভারত আর তাদের গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’। ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের যন্ত্রপাতি, অস্ত্র কারা ব্যবহার করছে এ ব্যাপারে কেউ প্রশ্ন তুলছেন না।

আলোচনা সভায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক জসিম উদ্দিন আহমেদ, জাতিসংঘের সাবেক পানি বিশেষজ্ঞ এস আই খান, অস্ট্রেলিয়ার
ওয়েস্টার্ন ও সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আনিসুজ্জামান চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন