default-image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নিজেদের অপরাধ অন্যের ওপর চাপানো বিএনপির অভ্যাসে পরিণত হয়েছে।

আজ রোববার নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ প্রতিনিধি সম্মেলনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। তিনি তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সম্মেলনে যুক্ত হন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ২০১৪ সালের আগুন–সন্ত্রাসের মতো আবারও ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। বাসে অগ্নিসংযোগ, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের চেষ্টা চলছে। এসব অপচেষ্টা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থেকে আওয়ামী লীগ কখনোই করবে না, সেটা মির্জা ফখরুল ইসলামদের বোঝা উচিত, মিথ্যাচার করা উচিত নয়। কোনো অপকর্ম করে কেউ ছাড় পাবে না। তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে সব অপকর্মের বিচার করা হবে। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আওয়ামী লীগ সব বিশৃঙ্খলার জবাব দেবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আগুন–সন্ত্রাস ও অপকর্ম যারা করে, তাদের পৃষ্ঠপোষকদের খুঁজে বের করা হবে। ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের কুমতলব আবার শুরু করেছে বিএনপি। এই কুমতলব থেকে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দুঃসময়ের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করুন। এরাই বিপদে পাশে থাকবে। আর সুবিধাভোগীদের হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না। সব কলহ থেকে বের হয়ে আসতে হলে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনা ফিরে এসেছিলেন বলেই কলহ-কোন্দলে জর্জরিত আওয়ামী লীগকে একসুতায় ঐক্যবদ্ধ করা সম্ভব হয়েছে। তাই তো আওয়ামী লীগ আজ জনগণের সংগঠনে পরিণত হয়েছে। করোনাকালেও অর্থনৈতিক চাকা সচল রয়েছে তাঁর বিজ্ঞ নেতৃত্বে।

প্রতিনিধি সম্মেলনে নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল কুদ্দুস সভাপতিত্ব করেন। সম্মেলনের কার্যক্রম পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাংসদ শফিকুল ইসলাম। সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আখতার জাহান, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ, সাংসদ শহিদুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য দেন। সম্মেলনে নাটোর জেলার উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা এবং জনপ্রতিনিধিরা অংশ নেন।

মন্তব্য পড়ুন 0