বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদফাইল ছবি

প্রয়াত বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদ বাংলাদেশের রাজনীতির ইতিহাসে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, ছাত্রজীবন থেকে শুরু করে শেষ দিন পর্যন্ত সক্রিয়ভাবে রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন মওদুদ আহমদ। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে জ্ঞানের আলোয় আলোকিত হয়ে বাংলাদেশে রাজনীতি করেছেন তিনি।

রোববার বিকেলে এক ভার্চ্যুয়াল স্মরণসভায় বিএনপির মহাসচিব এসব কথা বলেন। মওদুদ আহমদের স্মরণে বিএনপির উদ্যোগে এ ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান প্রয়াত নেতার রাজনৈতিক জীবন তুলে ধরে তাঁর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বক্তব্য দেন।

গত ১৬ মার্চ সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মওদুদ আহমদ। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের একজন মওদুদ আহমদ জিয়াউর রহমানের সরকারের মন্ত্রী ও উপ–প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। পরে দল বদলে এরশাদ সরকারের উপরাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন তিনি। পরে আবার বিএনপিতে ফিরে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকারের আইনমন্ত্রী হয়েছিলেন মওদুদ আহমদ।  

default-image

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আইনজীবী হিসেবে, রাজনীতিবিদ হিসেবে এবং সর্বোপরি একজন লেখক ও গবেষক হিসেবে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ অবশ্যই চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। উনি জীবিত থাকবেন তাঁর এলাকার মানুষের কাছে, বাংলাদেশের মানুষের কাছে, বিএনপির কাছে, আমাদের রাজনীতির ইতিহাসে, সংগ্রামে আন্দোলনের ইতিহাসে।’

বিজ্ঞাপন

মওদুদ আহমদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, অত্যন্ত পরিশীলিত ভাষায় পরিমিত বক্তব্য দেওয়া ছিল তাঁর প্রধান গুণ। অতীত থেকে শুরু করে শেষ জীবন পর্যন্ত দেখা গেছে তাঁর সময়ানুবর্তিতা ও নিয়মানুবর্তিতা—এটাও ছিল তাঁর বড় রকমের একটা গুণ।

মওদুদ আহমদের শেষ সময়টায় খুব কাছাকাছি আসার সুযোগ হয়েছিল জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমি তাঁর কাছে ব্যক্তিগতভাবে ঋণী তাঁর বিভিন্ন পরামর্শের জন্য। তিনি আমার কাছে একজন অভিভাবক ছিলেন।’

মওদুদ আহমদ সিঙ্গাপুরে যাওয়ার আগে বসুন্ধরায় এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকাকালে শেষ সাক্ষাতের স্মৃতিচারণা করে মির্জা ফখরুল বলেন, সেই সময়ে তিনি ও ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন তাঁকে দেখতে গিয়েছিলেন। তখন তিনি বলেছিলেন, এবার স্ট্যান্ডিং কমিটির মিটিংয়ে থাকতে পারবেন না। ইনশা আল্লাহ পরের শনিবারে থাকবেন। ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ পরের মিটিংয়ে আর উপস্থিত হতে পারেননি, সিঙ্গাপুর থেকে তিনি আর ফিরে আসেননি।

‘তিনি আর কোনো দিনই আমাদের সঙ্গে থাকবেন না। তিনি থাকবেন আমাদের হৃদয়ে, আমাদের অন্তরে…।’

এ সময় মওদুদ আহমদের সহধর্মিণী হাসনা মওদুদসহ পরিবারের সদস্যদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেন বিএনপির মহাসচিব।

মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্বে ও প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরীর পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ, জ্যেষ্ঠ নেতা বরকতউল্লা, মোহাম্মদ শাহজাহান, খন্দকার মাহবুব হোসেন, জয়নাল আবেদীন, নিতাই রায় চৌধুরী, এ জে মোহাম্মদ আলী, মাহবুব উদ্দীন খোকন, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস কাজল বক্তব্য দেন।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন