পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা নিহতের বিচার দাবি বিএনপির

বিজ্ঞাপন
default-image

পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি এর বিচার দাবি করেছেন এবং বলেছেন, রাষ্ট্র নাগরিকের মৌলিক অধিকার নিশ্চিতে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে চলেছে।

আজ সোমবার এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়ায় কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের শামলাপুর পুলিশ তল্লাশি চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদ নিহত হন।

এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলে, ‘সকল নাগরিকের জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা রাষ্ট্রের সাংবিধানিক দায়িত্ব। কিন্ত বর্তমান সরকারের আমলে গত এক দশকে নাগরিকের এই মৌলিক অধিকার নিশ্চিতে রাষ্ট্র লাগাতারভাবে নিষ্ক্রিয়তা ও ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে চলছে। মানবাধিকার সংগঠন সমূহের হিসেবে র‌্যাব ও পুলিশের হাতে ইতিমধ্যেই কয়েক হাজার লোকের এ ধরনের মৃত্যু ও তার সরকারি যান্ত্রিক-বিবৃতি ইতিমধ্যেই জনমনে একটি রাষ্ট্রীয়-মিথ্যাচার বলে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সর্বশেষ গত শুক্রবার সাবেক সেনা কর্মকর্তার এই অকাল নির্মম মৃত্যুর ঘটনাও তাই দেশবাসীকে আবারও ক্ষুব্ধ করেছে।’

সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় ‘লোক দেখানো’ তদন্তের বদলে বিশ্বাসযোগ্য প্রক্রিয়ায় প্রকৃত অপরাধীদের চিহ্নিত করে অবিলম্বে আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানান বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, বিএনপি বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড, গুম, খুন, এবং অমানবিক শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অবসান ঘটানোর জন্য জনগনের কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। সে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী বাংলাদেশকে একটি মানবিক রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তোলার কাজে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপি তার যথাযথ ভূমিকা পালন করে যাবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন