বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিএনপির নেতারা জানান, ঢাকা মহানগর কমিশনার সবারই পুলিশ কমিশনার। তাই সরকারি দল সভা–সমাবেশ করার ক্ষেত্রে যে অধিকার ভোগ করছে, তাঁদেরও সেই অধিকার দেওয়া উচিত। তাঁরা জানান, ডিএমপি কমিশনার বলেছেন তিনি বিষয়গুলো বিবেচনা করবেন।

আমান উল্লাহ আমান বলেন, ‘গুম হওয়া সুমনদের বাড়িতে আমরা ওর অসুস্থ আম্মাকে দেখতে গিয়েছিলাম। মিলাদ মাহফিল ছিল। সেখান থেকেও আমাদের নেতা–কর্মীদের ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ। সুমনের আম্মা আখতারুজ্জামানকে ধরে রেখেছিলেন।

তাঁকেও ছিনিয়ে নিয়ে গেছে।’ আমান আরও জানান, তাঁরা থানায় অবহিত করে কর্মসূচি দেওয়ার পরও নেতা–কর্মীদের ধরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। কর্মিসভাগুলো যেন নির্বিঘ্নে করতে পারেন সে কথা জানাতে তাঁরা ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে দেখা করেছেন।
সভা–সমাবেশে কী ধরনের বাধা দেওয়া হচ্ছে, এমন উদাহরণ দিতে গিয়ে আবদুস সালাম জানান, দক্ষিণে নয়াবাজারে বিএনপির নিজস্ব কার্যালয় আছে। ওই কার্যালয়ে অনুষ্ঠান ছিল। আগে থেকে পুলিশকে জানানো হয়েছিল। তারপরও পুলিশ অনুষ্ঠান করতে দেয়নি। তিনি বলেন, ‘ভাবেন, আমি আমার বাড়িতে প্রোগ্রাম করতে পারব না।’
বিএনপির নেতারা জানান, ৭ নভেম্বর তাঁদের আলোচনা অনুষ্ঠান রয়েছে। তা ছাড়া বিএনপির নেতা ও অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুবার্ষিকীতে উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি একত্র হতে চায়। সে বিষয়েও আজ পুলিশ কমিশনারকে তাঁরা জানিয়েছেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন