বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রতিমন্ত্রী আজ সোমবার সকালে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়েজিত ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালরাতে বঙ্গমাতার সাহসী ও দৃঢ় মনোভাবের কথা তুলে ধরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে মানুষ নিজের জীবন বাঁচায়, কিন্তু বঙ্গমাতা জীবন ভিক্ষা চাননি, তিনি নিজের জীবন দিয়ে গেছেন, রেখে গেছেন মানুষের জন্য মমতা ও ভালোবাসা।

মুরাদ হাসান দেশ ও জাতির জন্য বঙ্গমাতার ত্যাগ ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিটি সংগ্রামের সাহসী সিদ্ধান্তের পেছনে তাঁর ভূমিকার কথা তরুণ প্রজন্মকে জানানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

সংগঠনের সভাপতি রফিকুল আলমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন বলরাম পোদ্দার, শাহে আলম মুরাদ, শেখ মামুন, অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন