default-image

টাঙ্গাইল ও ঢাকায় তিন দফা জানাজা শেষে বুধবার রাতে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে শেষ শয্যায় শায়িত করা হলো স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠকারী শাজাহান সিরাজ। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বিদায় দেওয়া হয় মুক্তিযুদ্ধসহ ইতিহাসের নানা পর্বের অন্যতম সাক্ষী বিএনপির এই নেতাকে।

এর আগে নিজ জেলা টাঙ্গাইল থেকে শাহজাহান সিরাজের মরদেহ কিছু সময়ের জন্য ঢাকায় তাঁর গুলশানের বাসার সামনে আনা হয়। এর পর মরদেহ নেওয়া হয় গুলশান সোসাইটি জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে। সেখানে এশার নামাজের পর তাঁর তৃতীয় জানাজা হয়। জানাজায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির দুই মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও ইশরাক হোসেনসহ মরহুমের আত্মীয়-স্বজন, শুভাকাঙ্ক্ষী ও ঘনিষ্ঠজনেরা অংশ নেন।

রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার বিকেলে শাজাহান সিরাজ মারা যান। তিনি দীর্ঘদিন ডায়াবেটিস, কিডনি জটিলতা, উচ্চ রক্তচাপে ভুগছিলেন। ২০১২ সালে তাঁর ফুসফুসে, এরপর মস্তিষ্কে ক্যানসার ধরা পড়ে। অসুস্থতার কারণে রাজনীতি থেকে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েন। অনেক দিন ধরে তিনি হাসপাতালে যাওয়া-আসার মধ্যে ছিলেন।

শাহজাহান সিরাজ জাসদ থেকে বিএনপির রাজনীতিতে যুক্ত হন। ২০০১ সালে বিএনপির নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকারের সময় বন ও পরিবেশমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0