আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াত বাংলাদেশে চোরাগোপ্তা হামলা চালিয়ে মানুষ হত্যা করছে অভিযোগ করে দলগুলোকে কালো তালিকাভুক্ত করার দাবি জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের কয়েকটি বাংলাদেশি সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত সর্বদলীয় জোট। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সামনে অনুষ্ঠিত জোটের এক বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে ব্রিটিশ সরকারের প্রতি এ দাবি জানানো হয়।
বাংলাদেশে চলমান সহিংসতা ও হরতাল অবরোধের বিরুদ্ধে এ জোট গঠিত হয়েছে। আওয়ামী লীগ, বাসদ, জাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টি, কমিউনিস্ট পার্টি ও উদীচীসহ সমমনা বিভিন্ন দলের যুক্তরাজ্য শাখার নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেন। জোটের মুখপাত্র যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে স্টিফেন টিমস, জেসিকা মডার্ন, জন অ্যালান মিলসহ কয়েকজন ব্রিটিশ এমপি এসে সহিংসতার বিরুদ্ধে তাঁদের অবস্থান তুলে ধরেন।
এদিন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের কাছে হস্তান্তর করা এক চিঠিতে জোটের পক্ষ থেকে বলা হয়, গত বছরের নির্বাচন বর্জনের পর বিএনপি এবং জামায়াত জোট সহিংসতা চালিয়ে জোরপূর্বক সরকারকে টেনে নামাতে চাইছে। গত ৫ জানুয়ারি থেকে টানা হরতাল-অবরোধে পেট্রলবোমা মেরে মানুষ হত্যার ঘটনায় গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ জিহাদি ইসলামিস্টদের দখলে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।
চিঠিতে চলমান সহিংসতায় মানুষ হত্যা, গাড়ি পোড়ানো ও গাড়ি ভাঙচুরের পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলা হয়, লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে এসব ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন