বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিএনপির এই নেতা বলেন, দেশের মানুষের কাছে এখন একটাই চ্যালেঞ্জ। সেটা হচ্ছে দেশের দুর্নীতি, গুম, খুন, রাহাজানি, চাঁদাবাজি থেকে মুক্তি পেতে হলে দেশের গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে। জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এই সরকারের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে। তার জন্য প্রয়োজন জাতীয় ঐক্য।

মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেছেন বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলেও কিছু না, না নিলেও কিছু না। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তারা এমন অনেক কথা বলেন। তাদের নেতারা বলেছিলেন, যে দেশে শেখ হাসিনা রাষ্ট্রক্ষমতায়, সে দেশে করোনা কিছুই করতে পারবে না। পরে সেই নেতারাও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তারা বলে, বিএনপিকে কেউ সংলাপে ডাকে না। তাহলে নির্বাচনের আগে এত চেষ্টা-তদবির করে ড. কামালের মাধ্যমে কে ডেকে ছিল?’

বিএনপির এই নেতা বলেন, এখন নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন না হলে সেই নির্বাচনে বিএনপিসহ দেশপ্রেমী কোনো গণতান্ত্রিক দল অংশ নেবে না।

সংগঠনটির সভাপতি আবু নাসেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম প্রমুখ।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন