ভারতের সঙ্গে যে রক্তের সম্পর্ক তা দূষিত রক্ত: জাফরুল্লাহ

বিজ্ঞাপন
default-image

বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক রক্তের—পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এ কে আব্দুল মোমেনের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেছেন, ভারতের সঙ্গে যে রক্তের সম্পর্ক, তা দূষিত রক্ত। এ রক্ত দিয়ে কী হবে?

আজ রোববার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ভাসানী অনুসারী পরিষদ আয়োজিত ‘খরাকালে পোড়াও, বর্ষাকালে ভাসাও’—বাংলাদেশের ক্ষেত্রে ভারত এ নীতিতে চলার প্রতিবাদ শীর্ষক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাফরুল্লাহ চৌধুরী এসব কথা বলেন।

গতকাল শনিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, প্রতিবেশী দেশ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের রক্তের সম্পর্ক। তাঁর এ বক্তব্যের সমালোচনায় জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে ভারতের রক্তের সম্পর্ক। এই রক্ত তো দূষিত রক্ত। এই দূষিত রক্ত দিয়ে কী হবে? পরিচ্ছন্ন রক্ত দরকার। তাদের সজ্জন হওয়া দরকার।’ তিনি আরও বলেন, ভারতের বিরুদ্ধে সোচ্চার না হলে বাংলাদেশের মুক্তি নাই। এই দূষিত রক্ত থেকে মুক্তি দরকার।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী ভারতের রামমন্দির নিয়েও সমালোচনা করেন। এ ছাড়া বলেন, ‘প্রতিদিন ভারত সীমান্তে লোক মারছে অথচ আমাদের আওয়াজ নাই। কিন্তু নেপাল সংসদে আইন করে ভারতের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে।’

টেকনাফে মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যাকাণ্ডের ঘটনা প্রসঙ্গে জাফরুল্লাহ বলেন, সিনহা হত্যাকাণ্ড কি ওসি প্রদীপের ঘটনা? না এর সঙ্গে ‘র’ ও ‘মোসাদ’ যুক্ত আছে? এটা পরিষ্কারভাবে পরীক্ষা করা দরকার। এর জন্য স্বাধীন কমিশন গঠন করে তদন্ত করতে হবে।

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি বলেন, অপরিকল্পিত উন্নয়নের নামে বন্যার সৃষ্টি করা হচ্ছে। তিনি বাংলাদেশে বন্যার জন্য ভারতকেও দায়ী করেন। এ ছাড়া সরকারের সমালোচনা করে বলেন, সরকার ভারতের তাঁবেদারি করে। ভারতের সরকারের ওপর নির্ভর করে ক্ষমতায় আসে।

সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা হত্যা পরিকল্পিত উল্লেখ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক বলেন, এর পেছনে কুশীলবেরা রয়েছেন।

ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন বাসদ নেতা বজলুর রশীদ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সাইফুল হক, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন