ফরিদপুরের মধুখালী পৌরসভার সদ্যসমাপ্ত নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হয়েছে বলে দাবি করেছেন ফরিদপুর-১ আসনের সাংসদ আবদুর রহমান। তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের মধুখালীর নির্বাচনকে ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখার পরামর্শ দিয়েছেন।

ফরিদপুর প্রেসক্লাবে গতকাল সোমবার সংবাদ সম্মেলনে সাংসদ এ দাবি করেন। ‘২৯ মার্চ মধুখালী পৌর নির্বাচন-উত্তর বিজয় সমাবেশে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে’ এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে মধুখালী নাগরিক সমাজ। গত রোববার মধুখালী পৌরসভা নির্বাচনে কেন্দ্র দখল ও জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়। এ নিয়ে গতকাল প্রথম আলোরশেষের পাতায় একটি সংবাদ ছাপা হয়।

আবদুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, পত্রিকার মালিক বা তাঁদের নীতিমালা জাতীয় রাজনীতির প্রেক্ষাপটে যা-ই হোক না কেন, স্থানীয় পর্যায়ে সাংবাদিকেরা দেশের নাগরিক ও সমাজের অংশ। পত্রিকার দৃষ্টিভঙ্গি ভিন্ন হলেও সাংবাদিকেরা স্থানীয় পর্যায়ে এ বিষয়টিকে (মধুখালীর নির্বাচন) ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ-সমর্থিত মেয়র খন্দকার মোরশেদ রহমান। তিনি বলেন, বিজয় ঘোষণার পর রোববার রাতে বিজয় সমাবেশের জন্য মধুখালী ঈদগা মাঠে সমবেত হন স্থানীয় নেতা-কর্মীরা। এ সময় সন্ত্রাসীরা সমাবেশ বানচাল করতে ও আবদুর রহমানকে হত্যার উদ্দেশ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে।

নির্বাচনের দিন বিজয় সমাবেশের আয়োজন নির্বাচনী আচরণবিধির লঙ্ঘন কি না, প্রশ্নের জবাবে আবদুর রহমান বলেন, মোরশেদ রহমান ভুল বলেছেন, আসলে ওটা সমাবেশ ছিল না।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য মনোজ সাহা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মির্জা মনিরুজ্জামান।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন