default-image

মহামারি মোকাবিলায় ব্যর্থ সরকার মিথ্যা মামলা দিয়ে বিএনপির নেতা–কর্মীদের দমন করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে বলে অভিযোগ করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ফরিদপুরের সালথার ঘটনায় পুলিশের করা মামলায় বিএনপির নেতা–কর্মীদের জড়ানোর কথা উল্লেখ করে বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে বিবৃতি পাঠানো মির্জা ফখরুল এই অভিযোগ করেন। তিনি অভিযোগ করেন, উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপাতে বিএনপির অসংখ্য নেতা-কর্মীসহ নামে-বেনামে চার হাজার সাধারণ মানুষকে আসামি করে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মির্জা ফখরুল বলেন, সালথায় গত সোমবার সরকারের অপরিকল্পিত লকডাউনের পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় একজন পদস্থ সরকারি কর্মকর্তার উপস্থিতিতে এক দোকান কর্মচারীকে নির্যাতন করা হয়। এর প্রতিবাদে স্থানীয় জনসাধারণ বিক্ষোভে ফেটে পড়ে।

জনসাধারণের বিক্ষোভ দমন করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বেপরোয়া গুলিবর্ষণ এবং একজনকে হত্যার পর উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপাতে বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষকে আসামি করে মিথ্যা মামলা করা হয়। এটা প্রমাণ করে, সরকার মহামারি করোনা মোকাবিলা নয়, বরং মিথ্যা মামলা দিয়ে রাজনৈতিকভাবে বিএনপির নেতা–কর্মীদের দমন করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

বিএনপির মহাসচিবের অভিযোগ, সালথায় চার হাজার ব্যক্তিকে অজ্ঞাত রেখে ৮৮ জনের নাম উল্লেখ করে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে, যাঁদের ৮৮ জনের মধ্যে অধিকাংশই বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মী। তিনি বলেন, সরকারের উদাসীনতা, ব্যর্থতায় বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি চরম আকার ধারণ করে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। বাংলাদেশে গত বছরের তুলনায় করোনা মহামারি এখন আরও প্রকট আকার ধারণ করেছে। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু সংকটময় পরিস্থিতি সামাল দিতে আগের বছরের মতোই ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছে সরকার।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন