default-image

বাংলাদেশের মানুষ এখন এক অত্যাচারী শাসকের বর্বর শাসনে কাতরাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘জনগণের নিকট জবাবদিহিবিহীন সরকারের প্রতিদিন-প্রতিনিয়ত নিষ্ঠুর ও অমানবিক আচরণে দেশের মানুষ সর্বদাই আতঙ্কিত। আওয়ামী সরকার সারা দেশকে নরকপুরীতে পরিণত করেছে।’

আজ বুধবার বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কেরানীগঞ্জ ও নরসিংদীসহ সারা দেশে বিএনপি নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করতে দিনে-রাতে পুলিশের সাঁড়াশি অভিযান, জুলুম-নির্যাতন ও গ্রেপ্তারের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে গণমাধ্যমে এই বিবৃতি দিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব।

এতে মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, ‘ভোটারবিহীন সরকার দেশব্যাপী বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ধারাবাহিকভাবে গ্রেপ্তার করছে। এই পবিত্র মাহে রমজানেও আওয়ামী সরকারের দানবীয় মূর্তি যেন আরও বিকট আকার ধারণ করেছে।’

বিজ্ঞাপন

বিএনপির মহাসচিবের দাবি, ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের সাঁড়াশি অভিযান, কেরানীগঞ্জ মডেল থানা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মনির হোসেন ও থানা ওলামা দলের সহসভাপতি মাওলানা আলাউদ্দিন এবং নরসিংদী জেলা বিএনপির কোষাধ্যক্ষ সমির ভূঁইয়া, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক সাদেকুর রহমান, ছাত্রনেতা কাজী সালমান ও বিএনপি কর্মী তারেক সরকার ডালিমকে গ্রেপ্তারসহ দেশব্যাপী বিভিন্ন অঞ্চলে পবিত্র মাহে রমজান মাসে বিএনপি নেতা-কর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে পুলিশি গ্রেপ্তার অভিযান ও জুলুম-নির্যাতনের ঘটনা সরকারের দানবীয় মূর্তিরই নগ্ন বহিঃপ্রকাশ।’

মির্জা ফখরুল বলেন, করোনাভাইরাসের মহামারিতে দেশবাসীর আতঙ্ক ও উদ্বেগের মধ্যেও বিরোধী দলের ওপর সরকারের জুলুম-নির্যাতনের মাত্রার কোনো কমতি নেই, বরং তা আরও বহুগুণে বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ দেশব্যাপী বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত বানোয়াট মামলা প্রত্যাহার ও তাঁদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন