বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বর্ধিত সভায় প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা রক্ত দিয়ে স্বাধীনতা এনেছি। দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব নিয়ে কেউ ছিনিমিনি খেলতে পারবে না। খ‍ালেদা জিয়া যুদ্ধাপরাধীদের যতই বাঁচানোর চেষ্টা করুন না কেন, রাজাকারদের ঠাঁই বাংলার মাটিতে নেই। বাংলার মাটিতে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবেই। স্বাধীনতার চেতনায় দেশকে গড়ে তুলব।

মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাসী সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ক্ষুধা–দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে হবে। যখন থেকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হয়েছে, তখন থেকেই বিরোধী দলের নেত্রীর মাথা খারাপ হয়ে গেছে। যতই ষড়যন্ত্র করুন না কেন, তাঁদের রক্ষা করতে পারবেন না।’
মুরাদ হাসান আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়‌নে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভা‌বে কাজ কর‌তে হ‌বে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হা‌সিনার নেতৃ‌ত্বে দেশ এগিয়ে যা‌চ্ছে। রাজাকার-আলবদররা যেন দে‌শের ক্ষ‌তি কর‌তে না পা‌রে, সে‌দি‌কে সবার সজাগ দৃ‌ষ্টি রাখ‌তে হ‌বে।

এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সালেহ সফি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ, জেলা আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধাবিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিন পাঠান, উপদপ্তর সম্পাদক জহুরুল ইসলাম, মহাদান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত আলী মাস্টার, সাধারণ সম্পাদক এ কে এম আনিসুর রহমানসহ দলের নেতা–কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন