বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত ২ আগস্ট ঢাকা মহানগরীর দুই অংশের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার পর দক্ষিণের কমিটি সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করে। এ সময় আবদুস সালাম ঢাকা দক্ষিণে ২৪টি থানা ও ৭৫টি ওয়ার্ডে দল পুনর্গঠনসহ সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মসূচির বিষয়ে পরিকল্পনা তুলে ধরেন। এর মধ্যে রাজধানীতে মশকনিধনে কার্যকর পরিকল্পনা; করোনা চিকিৎসায় ঢাকা দক্ষিণের হাসপাতালগুলোতে পর্যাপ্ত আইসিইউ স্থাপন; হোল্ডিং ট্যাক্স মওকুফ; মাদক, নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা; দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি; যানজট ও জলাবদ্ধতা নিরসন; খেলার মাঠ দখলমুক্ত করা; বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহার ও কারাবন্দীদের মুক্তির দাবি উল্লেখযোগ্য।

বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম বলেন, ‘কেবল কেন্দ্রীয় ও মহানগর অফিস ছাড়া আমরা কোথাও সভা করতে পারি না। বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক দল। আমরা আমাদের গণতান্ত্রিক কর্মসূচি পালনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তা চাই।’

আবদুস সালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মহানগর দক্ষিণের সদস্যসচিব রফিকুল আলম স্বাগত বক্তব্য দেন। এ সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় ও বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতা ছাড়াও মহানগর দক্ষিণ কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক নবী উল্ল্যাহ, ইউনুস মৃধা, মো. মোহন, আবদুস সাত্তার, আ ন ম সাইফুল ইসলাম, হারুন উর রশিদ, তানভীর আহমেদ, লিটন মাহমুদ, এস কে সেকেন্দার কাদির, মনির হোসেন ও কমিটির ১ নম্বর সদস্য ইশরাক হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন