বিএনপি দাবি করেছে, সরকারপ্রধান থেকে শুরু করে তাঁর একাধিক মন্ত্রী, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দলবাজ কর্মকর্তা এবং আওয়ামী লীগের নেতাদের শত উসকানির মুখেও চরম ধৈর্যের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে।
গতকাল শুক্রবার এক যৌথ বিবৃতিতে বিএনপির ঢাকা মহানগরের আহ্বায়ক মির্জা আব্বাস ও সদস্যসচিব হাবিব উন-নবী খান এ দাবি করেন। আজ ঢাকায় শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি সফল করতে দলের নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে এ বিবৃতি দেওয়া হয়।
বিবৃতিতে খালেদা জিয়াকে নিজ কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করার পর তাঁর ওপর পেপার স্প্রে ছোড়া, কার্যালয়ের বিদ্যুৎ লাইনসহ সব সেবা-সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপস্থিতিতে গত এক সপ্তাহে কার্যালয়ের সামনে ভাড়াটে লোক দিয়ে সভা-সমাবেশের নামে খালেদা জিয়াকে গালাগাল করা, কার্যালয়ে ইটপাটকেল ছুড়ে মারা, সর্বশেষ ওই কার্যালয়ে খাবার ও পানি বন্ধ করার উল্লেখ করে বলা হয়, এভাবে একের পর এক চরম উসকানিমূলক কাজ করে যাচ্ছে সরকার। এত কিছুর পরও ২০ দলের নেতা-কর্মীরা ধৈর্যের সঙ্গে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ায় সরকার ও তাদের পা চাটা দালালদের ধৈর্যচ্যুতি ঘটেছে।
খুনিদের সঙ্গে কিসের সংলাপ? প্রধানমন্ত্রীর এ বক্তব্যের উল্লেখ করে মির্জা আব্বাস ও সদস্যসচিব হাবিব উন-নবী খান বিবৃতিতে বলেন, ইতিহাস বলে বিএনপি নয়, খুনের রাজনীতি করে আওয়ামী লীগ। বর্তমান সংকটের নিরসন করতে হলে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সংলাপ করতে হবে।
গত ৩৯ দিনে ঢাকা মহানগর বিএনপির শীর্ষস্থানীয় দুই নেতার এটি তৃতীয় বিবৃতি।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন