default-image

জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ বলেছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী দিনরাত কাজ করছেন। জনগণকেও সচেতন হতে হবে। উপযুক্ত সাড়া দিতে হবে।

আজ রোববার জাতীয় সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদ এসব কথা বলেন।

রওশন এরশাদ বলেন, করোনার সংক্রমণ প্রতিদিন বাড়ছে। বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, ভয়াবহ পরিস্থিতি হবে। হাসপাতালে জায়গা হচ্ছে না। কিন্তু মানুষের মধ্যে সচেতনতা নেই। তারা স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। সরকারের ঘোষিত ১৮ দফা নির্দেশনাও মানা হচ্ছে না। মানুষ মাস্ক পরে না। স্যানিটাইজার দিতে গেলে বিরক্ত হয়। বইমেলায় অনেকে মাস্ক ছাড়া ঘুরছে।

বিজ্ঞাপন

সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, ‘এ অবস্থায় সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা খুবই কঠিন। কিন্তু এখানে প্রধানমন্ত্রী অনেক চেষ্টা করছেন। যদি আমরা সচেতন না হই, তবে কী হবে? মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দিনরাত ২৪ ঘণ্টা সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।’

রওশন এরশাদ বলেন, করোনার পরীক্ষা আরও বাড়াতে হবে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করে মানুষ পরীক্ষা করতে পারছে না। আইসোলেশনের সুযোগ বাড়াতে হবে। করোনার সংক্রমণ মোকাবিলায় সর্বোচ্চ শক্তি নিয়োগ করতে হবে।

রওশন এরশাদ আরও বলেন, বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি বেড়েছে। এখন উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেয়েছে। কয়েক বছর গড় আয়ু বেড়েছে। গণপরিবহন উন্নয়নে মেট্রোরেল হচ্ছে। পদ্মা সেতু সমাপ্তির পথে। জীবনযাত্রার মান উন্নত হয়েছে। অন্যদিকে বৈষম্য বেড়েছে সাগরসমান। অস্থিতিশীলতা, নিরাপত্তাহীনতা বেড়েছে। নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। ভেজাল খাদ্য খেয়ে তিন লাখ মানুষ প্রতিবছর বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন