default-image

সুনামগঞ্জের শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামে সংখ্যালঘুদের বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে বিএনপি। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আজ বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে হামলায় জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার ও শাস্তি দাবি করেছেন। তিনি বলেছেন, এ সরকারের আমলে সংখ্যালঘুদের ওপর আক্রমণের মাত্রা সীমাহীন পর্যায়ে পৌঁছেছে। আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় আসে, সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায় বলে অভিযোগ করেন তিনি।


বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়, বেশ কয়েক বছর ধরে ক্ষমতাসীন দলের লোকজন সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা করছেন, তাঁদের বাড়িঘর ও দেবালয়ে অগ্নিসংযোগ এবং সম্পত্তি দখল করছেন।


উল্লেখ্য, সুনামগঞ্জের শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের এক যুবকের বিরুদ্ধে হেফাজতের নেতা মামুনুল হককে নিয়ে ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্ট দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এর জেরে গত বুধবার সকালে নোয়াগাঁও গ্রামে হামলা চালানো হয়।
শাল্লায় কোনো অশুভ উদ্দেশ্য নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটেছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, ভয়াল পরিবেশের কারণে এ দেশে মানুষের ধর্মীয় স্বাধীনতা বিপন্ন হয়ে পড়েছে। সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা করতে পারেনি, তাঁদের নিরাপত্তা দিতেও ব্যর্থ হয়েছে। আওয়ামী সরকার বিরোধী মত ও বিরোধী দলের নেতা–কর্মীদের দমন ও নির্যাতনে ব্যস্ত, যে কারণে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার বিষয়ে তারা উদাসীন।

বিজ্ঞাপন


কোনো উসকানির মুখে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব ফখরুল বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি যারা নষ্ট করে, তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। যারা সংখ্যালঘুদের হামলা চালাচ্ছে, তারা মানবজাতির শত্রু। তিনি শাল্লার ঘটনায় হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি জানান।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন