সমাজে বিতর্কিতরা আ.লীগে ঠাঁই পাবে না: খালিদ মাহ্মুদ

বিজ্ঞাপন
default-image

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহ্‌মুদ চৌধুরী বলেছেন, ‘যারা স্বাধীনতাবিরোধী, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস করে না, সরাসরি সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের সঙ্গে যুক্ত, সমাজে যারা বিতর্কিত, আওয়ামী লীগে তাদের ঠাঁই ছিল না; ভবিষ্যতেও তাদের ঠাঁই এই দলে হবে না।’

দিনাজপুরের বিরল মহিলা কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন খালিদ মাহ্‌মুদ। আজ শনিবার বেলা ১১টায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহ্‌মুদ চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগের কাছে মানুষের যে প্রত্যাশা ছিল, অনেকাংশে তার প্রাপ্তি ও সুফল মানুষ আজ ভোগ করছে। মানুষ এই জায়গা থেকে আর কখনো মুখ ফিরিয়ে নেবে না।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, যে মর্যাদা ও সম্মানের আসনে বাংলাদেশ আজ দাঁড়িয়ে আছে, সেখানে কোনো অপরাধীর দায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ গ্রহণ করবে না। এ জন্যই আওয়ামী লীগ তার ঘর থেকেই শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছে।

বিএনপি একসময় বিলীন হয়ে যাবে মন্তব্য করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মানুষকে নিয়ে ভুল পথে হাঁটতে চেয়েছিল বিএনপি। তারা নিজেরাও মরীচিকার পেছনে ছুটেছে। মানুষকে সঠিক রাস্তা দেখাতে তারা ব্যর্থ হয়েছে।

খালিদ মাহ্‌মুদ বলেন, ‘বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপরে মানুষ আস্থা স্থাপন করতে পেরেছে। আজ শেখ হাসিনার হাত ধরে তারা গন্তব্য খুঁজতে চেষ্টা করে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগ সঠিক পথে আছে—এ কথা এখন বিএনপির অনেক নেতা-কর্মীই বিশ্বাস করতে শুরু করেছে। তাই অনেক নেতা-কর্মীই ইতিমধ্যে দল থেকে পদত্যাগ করেছে। ’

বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগে ১৫ বছর ধরে কোনো অনুপ্রবেশকারী নেই—এমন মন্তব্য করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, উপজেলার প্রতিটি মহল্লায় ও গ্রামে কমিটি গঠন করা হবে। তারপর ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও উপজেলা কমিটি গঠন করা হবে। নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, কমিটি গঠন করার সময় অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে কোনো অপরাধী, চরিত্র স্খলন হওয়া ব্যক্তি যেন দলের কোনো কমিটিতে স্থান না পায়, সেদিকে দৃষ্টি রাখতে হবে।

খালিদ মাহ্‌মুদ বলেন, ‘আওয়ামী লীগের কোনো নেতা-কর্মী ভুল করতে চায় না। এতে নেত্রীর হাত দুর্বল হয়ে পড়বে।’

বর্ধিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম আবদুল লতিফ। উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের চিকিৎসাবিষয়ক সম্পাদক মানবেন্দ্র রায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবুল কাশেম, উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান, পৌর মেয়র সবুজার সিদ্দিক।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন