বিএনপিসহ কারও সমাবেশে বাধা দেওয়ার অভিপ্রায় আওয়ামী লীগের নেই বলে জানিয়েছেন দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। তিনি বলেন, ‘আমরা বিএনপিসহ কাউকেই কোথাও কর্মসূচি পালনে বাধা দিচ্ছি না। দেওয়ার ইচ্ছাও নেই।’
আজ সোমবার দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির পক্ষ থেকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নানক এ কথা বলেন।
জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ‘বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আওয়ামী লীগকে কোথাও সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না। আমাদের বক্তব্য স্পষ্ট, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আওয়ামী লীগ গণমানুষের দল। আন্দোলন করতে করতেই আমাদের জন্ম। যদি কারও বাধা দেওয়ার ইচ্ছা থাকে, তাদের আমরা দেখতে চাই। গত ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে আমরা অগ্নিপরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছি। এখন তারা আমাদের কিছুই করতে পারবে না। তারা যে তাণ্ডব চালিয়েছে, বাংলার জনগণ তা দেখেছে। তাদের সহিংসতার পরিমাণ বেশি, তার মানে এই নয় যে আমরা দুর্বল।’

গাজীপুরের সমাবেশে কি আওয়ামী লীগ বাধা দেয়নি, এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে নানক বলেন, ‘গাজীপুরে বিএনপিকে সমাবেশ করতে আওয়ামী লীগ বাধা দেয়নি। সেখানে খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমানের বক্তব্যের কারণে সেখানের ছাত্র-জনতা ও সাধারণ মানুষ তাদের সমাবেশ করতে দেয়নি। আমাদের কোনো নির্দেশনা নেই। খালেদা জিয়া তাঁর ছেলের পক্ষ থেকে যদি ক্ষমা না চান, তাহলে দেশের ছাত্র, তরুণ ও যুবসমাজ কোথায় গিয়ে পৌঁছাবে, তা বলা যাচ্ছে না।’
ভ্রান্ত অজুহাতে বিএনপি আজকের হরতাল আহ্বান করেছে মন্তব্য করে নানক বলেন, ‘বিএনপির আজকের হরতাল গাজীপুরের কর্মসূচি করতে না দেওয়ার কারণে নয়। মূলত যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকে বাধাগ্রস্ত করা এবং খালেদা জিয়ার মামলার বিচার বানচাল করার জন্য এই হরতাল দেওয়া হয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি, তাদের এসব ধ্বংসাত্মক কার্যকলাপের জন্য জনগণ তাদের পাকড়াও করবে।’
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবাহন গোলাপ, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক আবদুস ছাত্তার, কেন্দ্রীয় সদস্য এ কে এম এনামুল হক শামীম, এস এম কামাল হোসেন, সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন