default-image

রওশন এরশাদকে জাতীয় পার্টির চিফ প্যাট্রন (প্রধান পৃষ্ঠপোষক) এবং জি এম কাদেরকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান নির্বাচিত করা হয়েছে। আজ দলটির নবম জাতীয় সম্মেলনে এ দুই পদে দুজনকে নির্বাচিত করা হয়। এ ছাড়া দলের মহাসচিব হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে মসিউর রহমানকে। অন্য পদগুলোতে চেয়ারম্যান নিয়োগ দেবেন।

আজ শনিবার সকাল থেকে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। রওশন এরশাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জাতীয় পার্টির সম্মেলনে যোগ দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

দলের চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) কাদের জাপার নবম জাতীয় সম্মেলন উদ্বোধন করেন। এই প্রথম প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদকে ছাড়া দলটির সম্মেলন হচ্ছে।

২০১৬ সালের মার্চে জাতীয় পার্টির অষ্টম কাউন্সিলে দলটির প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ তাঁর ভাই জি এম কাদেরকে কো-চেয়ারম্যানের পদে বসান। পরে রওশনের জন্য সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান পদ তৈরি করেন এরশাদ। এ বছরের মে মাসে এরশাদ জি এম কাদেরকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন।

গত ১৪ জুলাই ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান এরশাদ। তার কিছুদিন পর মসিউর রহমান এক সংবাদ সম্মেলন করে দলের চেয়ারম্যান হিসেবে জি এম কাদেরের নাম ঘোষণা করেন। এ ঘোষণার বিরোধিতা করে রওশনপন্থীরা সেপ্টেম্বর মাসে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে রওশন এরশাদকে জাপার চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন। পরে দুই পক্ষের সমঝোতার কথা জানিয়ে মসিউর রহমান সংবাদ সম্মেলন করে জি এম কাদেরকে চেয়ারম্যান এবং রওশনকে সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ঘোষণা করেন।

জাপার কেন্দ্রীয় সম্মেলনের এক দিন আগে গতকাল শুক্রবার দলের মহাসচিব মসিউর রহমান জানান, সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদকে দলের প্রধান পৃষ্ঠপোষকের পদ দেওয়া হচ্ছে। তিনি যত দিন জীবিত থাকবেন, তত দিন দলের ‘চিফ প্যাট্রন’ বা প্রধান পৃষ্ঠপোষক পদে থাকবেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0