স্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে সরকারকে দ্রুত পদত্যাগের পরামর্শ দিতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিএনপি। দলটির ভাষায়, ‘জনপ্রতিনিধিত্বশীল’ সংসদ ও সরকার প্রতিষ্ঠিত হলে ব্যবসাবান্ধব স্থিতিশীল পরিবেশ নিশ্চিত হবে।
আজ রোববার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমদ এই আহ্বান জানান।
ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইর সভাপতি কাজী আকরাম উ​িদ্দন আহ্‌মদের সমালোচনা করে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এফবিসিসিআইর দলবাজ সভাপতির কারণে ব্যবসায়ী সমাজের বক্তব্য সরকারের কর্ণকুহরে প্রবেশ করছে না। সরকারপ্রধানের রাজনৈতিক ভুল সিদ্ধান্তের কারণেই চলমান রাজনৈতিক সংকট ও অস্থিরতার সৃষ্টি হয়েছে। অতএব, স্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে সরকারকে দ্রুত পদত্যাগের পরামর্শ প্রদান করুন। নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের মাধ্যমে সত্যিকারের জনপ্রতিনিধিত্বশীল সংসদ ও সরকার প্রতিষ্ঠিত হলে ব্যবসাবান্ধব স্থিতিশীল পরিবেশ নিশ্চিত হবে।’
দেশের সব পরীক্ষার্থী, অভিভাবকসহ সব শ্রে​িণ-পেশার মানুষকে সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করার জন্য আহ্বান জানান সালাহ উদ্দিন। তিনি বলেন, ‘প্রশ্নপত্র ফাঁস এবং গণহারে পাস করিয়ে দিয়ে সমগ্র শিক্ষাব্যবস্থাকে নিলামে উঠিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও বেচারা শিক্ষামন্ত্রী পরীক্ষার্থীদের জন্য মায়াকান্না করছেন। ১৯৯৫-৯৬ সালের আওয়ামী নৈরাজ্য ও তাণ্ডবের কারণে এসএসসি পরীক্ষা তিন মাস পেছাতে বাধ্য হয়েছিল তৎকালীন বিএনপি সরকার।’
বিবৃতিতে দাবি করা হয়, খালেদা জিয়াকে সব যোগাযোগব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন অবস্থায় অঘোষিতভাবে গৃহবন্দী করে রাখা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইইউসহ পৃথিবীর সব উন্নত রাষ্ট্র, জাতিসংঘসহ সব সংস্থা উদ্বেগ জানানোর পরও সরকারের টনক নড়ছে না।
বিবৃতিতে দাবি করা হয়, গতকাল শনিবার ঢাকার শ্যামলী এলাকায় মিছিল থেকে শিবিরের চার কর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর মধ্যে শিবির নেতা জসীম উদ্দিন হাওলাদারকে ক্রসফায়ারে হত্যা করা হয়। অন্য তিন শিবির নেতা সজীব, আবদুল মান্নান ও আবদুল্লাহকে পুলিশ গ্রেপ্তার করলেও এখনো স্বীকার করেনি। এ ছাড়া ঢাকার কলাবাগান থানার পুলিশ শিবির নেতা আবু হাসানকে বাসা থেকে থানায় ডেকে নিয়ে পায়ে গুলি করে। কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের জামায়াত নেতা বেলায়েত হোসেন মজুমদার ও বেলাল হোসেন পণ্ডিতকেও বাসা থেকে ডেকে থানায় নিয়ে পায়ে গুলি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন