default-image

সরকার নিজেদের ব্যর্থতা ও ভোট ডাকাতি ঢাকতে পরিকল্পিতভাবে গণপরিবহনে আগুন দিয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, দায় বিএনপির ওপর চাপিয়ে বানোয়াট মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে।

আজ মঙ্গলবার বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহর স্বাক্ষরিত পাঠানো এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

বিএনপির ঢাকা মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরিফুর রহমানকে গ্রেপ্তারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তাঁর মুক্তি দাবি করেছেন ফখরুল। তিনি বলেন, ‘সরকার নিজেদের ব্যর্থতা, দুঃশাসন, দুর্নীতি, লুটপাট ও ভোট ডাকাতির নির্বাচন আড়ালের উদ্দেশ্যে জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে সুপরিকল্পিতভাবে ঢাকায় গণপরিবহনে আগুন দিয়েছে। এখন সেই ঘটনার দায়দায়িত্ব বিএনপির ওপর জবরদস্তিমূলক চাপিয়ে দিয়ে ষড়যন্ত্রমূলক বানোয়াট মামলা দায়েরের মাধ্যমে বিএনপি এবং অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীকে হয়রানি ও গ্রেপ্তার করছে।’

বিজ্ঞাপন

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার স্বভাবসুলভভাবে মিথ্যাচার ও নাটক সাজিয়ে আবারও জনগণকে বিভ্রান্ত করতে চাচ্ছে। মামলার বাদীই অস্বীকার করেছেন যে তিনি মামলা দায়ের করেননি। ভুয়া বাদীর মামলায় বিএনপির নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানি করা হচ্ছে।

মির্জা ফখরুল প্রশ্ন তোলেন, ‘স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ অসুস্থ, আহত, চিকিৎসাধীন কিংবা ঢাকার বাইরে ও বিদেশে অবস্থানরত নেতা-কর্মীদের মামলায় আসামি করা হলো কিসের ভিত্তিতে?’রাজনৈতিক কারণেই এসব মামলা করা হয়েছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব এসব মামলা প্রত্যাহার ও নেতা-কর্মীদের মুক্তি দাবি করেন।

মন্তব্য পড়ুন 0