default-image

করোনা মোকাবিলায় সরকার কোনো সফলতা দেখাতে পারেনি বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, করোনা সংক্রমণের ৮ মাসে বোঝা গেছে দেশের স্বাস্থ্য খাত কতটা ভঙ্গুর, দুর্বল, অগঠিত এবং দুর্নীতিগ্রস্ত।

সরকার স্বাস্থ্য, শিক্ষার মতো মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করার ব্যাপারে কিছুই করেনি। কেবল বক্তৃতাবাজির মধ্যেই ব্যস্ত।

আজ বুধবার বিকেলে নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে ফেসবুক লাইভে দেশবাসীর উদ্দেশে বক্তব্য দেন মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলছেন, করোনার প্রকোপ বাড়ছে, অথচ হাসপাতালে পর্যাপ্ত পরীক্ষা হচ্ছে না, আইসিইউ সংকট। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সরকারের মতোই জরাগ্রস্ত, দুর্নীতিগ্রস্ত। এত কিছুর পরও স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে কেন স্বপদে রাখা হয়েছে, তা বোধগম্য না।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে কথা হচ্ছে। সরকার বলেছে, ৩ কোটি ভ্যাকসিন বিনা মূল্যে দেওয়া হবে। এগুলো কারা পাবে? প্রণোদনা যেভাবে দেওয়া হয়েছে, সেভাবে? আবারও তেলের মাথায় তেল দেওয়া হবে? তিনি বলেন, ‘সরকারকে প্রশ্ন করতে চাই, আপনারা গ্যারান্টি করতে পারবেন যে এই ভ্যাকসিন নিয়ে নয়ছয় করবেন না? সে রকম যেন না হয়, তার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নেন।’

বিজ্ঞাপন

মান্না বলেন, করোনায় সরকার দারিদ্র্যসীমার নিচের মানুষদের জন্য কিছু করতে পারেনি। যারা দারিদ্র্যসীমার ওপরে ছিল, এ রকম আরও ১ কোটি ৬০ লাখ মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে চলে গেছে। আর সরকারি ত্রাণ, প্রণোদনা নিয়ে যে লুটতরাজ হয়েছে, তা সবাই দেখেছে।

সরকার ১০ টাকা করে চাল খাওয়ানোর কথা বলে এখন ৬০ টাকা করে চাল খাওয়াচ্ছে বলে দাবি করেন মাহমুদুর রহমান। তিনি বলেন, সরকার জিডিপি দেখায়, অথচ মানুষের পেটে ভাত নেই, মানুষের কাজ নেই। কেবল জনগণকে ধোঁকা দিয়ে, অত্যাচার করে ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার চেষ্টা করছে।

সরকারি মদদপুষ্ট সিন্ডিকেট দ্রব্যমূল্য নিয়ে কারসাজি করছে অভিযোগ করে মান্না বলেন, ‘২ কোটি টাকার মামলায় বেগম জিয়াকে ১৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন। অথচ যারা সিন্ডিকেট করে, দেশের মানুষকে জিম্মি করে হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট করছে, তাদের কিছু করতে পারেন না। কারণ, তারা আপনাদের লোক, আপনাদেরই অংশ।’

মন্তব্য করুন