default-image

চলমান রাজনৈতিক সংকটে ‘আজীবন সংগ্রামী’ প্রয়াত সাদেক হোসেন খোকার সাহস, ধৈর্য ও দেশপ্রেম আজ বেশি প্রয়োজন বলে মন্তব্য করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সন্দেহ নেই তাঁর এই হঠাৎ​ করে চলে যাওয়া গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে অনেকখানি ব্যাহত করবে।

মঙ্গলবার বিকেলে একাত্তরের বীর গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা ও ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার স্মরণে এক ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল ইসলাম এ কথা বলেন। গত বছরের ৪ নভেম্বর সাদেক হোসেন যুক্তরাষ্ট্রে মারা যান। তাঁর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ‘সাদেক হোসেন খোকা ফাউন্ডেশন’ এ সভার আয়োজন করে।

বিজ্ঞাপন

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘যখন আমরা একটা ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্রে বাস করছি, যখন এই সরকার দানবের মতো আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সমস্ত অর্জনকে ধ্বংস করে দিচ্ছে, গণতন্ত্রের যে সংগ্রাম তাকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। তখন তাঁকে (খোকা) আমাদের প্রয়োজন ছিল দেশনেত্রীকে মুক্ত করবার জন্য, দেশকে, গণতন্ত্রকে মুক্ত করার জন্য।’

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সাদেক হোসেন খোকা সব সময় মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। অত্যন্ত কষ্ট লাগে, আজ যাঁরা মুক্তিযুদ্ধে ফেরিওয়ালা বলে দাবি করেন, তাঁরা সেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বারবার হত্যা করছেন। তাঁরা একবার পঁচাত্তর সালে হত্যা করেছেন, আবার এই সময়টা পর্যায়ক্রমে গণতন্ত্রকে হত্যা করে বিচারহীন দেশে পরিণত করেছেন।

জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, ‘আজকে অনেকে মুক্তিযুদ্ধের কথা বলেন, তাঁরা মুক্তিযুদ্ধ করেনওনি, দেখেনওনি। আমাদের মুক্তিযুদ্ধে গেরিলাযুদ্ধ না হলে কনভেনশন ওয়ারে পাশের দেশের সীমানার মধ্য থেকে যুদ্ধ করলেও বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না। দিস ইজ রিয়ালিটি (এটাই বাস্তবতা)।’

আ স ম আবদুর রব বলেন, আজকে ঢাকা শহরে মুক্তিযোদ্ধাদের নামে যে রাস্তার নাম দেখি, অধিকাংশ রাস্তার নাম তাঁর দলের (বিএনপি) নেতার নামে নয়, এই ইতিহাসটা সৃষ্টি করেছেন অবিভক্ত ঢাকার মেয়র সাদেক হোসেন খোকা। এরপরে আর কেউ এটা চালিয়ে নেননি।

সাদেক হোসেন খোকার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কথা স্মরণ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আগে-পরে, সামনে-পেছনে যে যা–ই বলুক, খোকাকে সত্যিকার অর্থে আমি ভালোবাসতাম। তাঁর অনুপস্থিতি এখনো আমাকে পীড়া দেয়। আমাদের মধ্যে যে ধরনের একটা সম্পর্ক ছিল, এই সম্পর্কটা আমি এখন কারোর মধ্যে দেখি না।’

বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালামের সভাপতিত্বে ও দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহের পরিচালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0