দলটির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, ‘গত দেড় বছর যাবৎ করোনা অতিমারি সংক্রমণ ঠেকাতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অপরিসীম দায়িত্বহীনতা, অদূরদর্শিতা, পরিকল্পনাহীনতা ও সমন্বয়হীনতার কারণে ব্যাপক হারে জীবনহানি হচ্ছে। এ জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে ঢেলে সাজাতে যোগ্য ব্যক্তিকে দায়িত্ব প্রদান করা দরকার। এ ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে আশা রাখি।’

দারিদ্র্য ও চিকিৎসার অভাবের কারণে গ্রামে অনেক মৃত্যু ঘটছে উল্লেখ করে ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় তাদের সিদ্ধান্তহীনতা, অব্যবস্থাপনা, অদক্ষতা ও দুর্নীতির রেকর্ড নিয়ে সমালোচনার শীর্ষে অবস্থান করছে। তারপরও সমস্ত হাসপাতালে শয্যাসংখ্যা, আইসিইউ বৃদ্ধিসহ পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহের দাবি করছি।’
দ্রুত সারা দেশে গণটিকা দেওয়ার দাবি জানান তিনি।

দলের ঢাকা মহানগর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে আয়োজন করা হয় অনুষ্ঠানটির। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চ্যুয়ালি উপস্থিত থেকে কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ফজলে হোসেন বাদশা। বক্তব্য দেন নগর পার্টির সাধারণ সম্পাদক কিশোর রায় ও শহীদ রাসেল ব্রিগেডের প্রধান সমন্বয়ক সাদাকাত হোসেন খান বাবুলও।

আবুল হোসাইন বলেন, ‘রোম যখন পুড়ে, নিরো তখন বাঁশি বাজায়—দেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কার্যক্রম দেখে তাই মনে হয়। স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে ইতিমধ্যেই জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছেন। তাঁর উচিত যোগ্য ব্যক্তির নিকট দায়িত্ব অর্পণ করা। কারণ, উনি ইতোমধ্যেই হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু ও লক্ষ লক্ষ মানুষের সংক্রমণজনিত ভোগান্তির জন্য দায়ী। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যর্থতার কারণে বাংলাদেশ টিকাসংকটে পড়েছে।’