default-image

বিএনপি অবরোধ বা হরতাল প্রত্যাহার করে নিলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পেট্রলবোমা হামলা বন্ধ করার সামর্থ্য সরকারের রয়েছে বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। তিনি বলেন, বিএনপি যদি এসব হামলার দায় স্বীকার করে নেয়, তাহলে সরকার পরবর্তী করণীয় নিয়ে ভাববে।
আজ সোমবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে হানিফ এসব কথা বলেন। বিএনপি-জামায়াতের ডাকা হরতাল-অবরোধে দলের বক্তব্য তুলে ধরতেই এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
খালেদা জিয়া বিদেশি প্রভুদের নির্দেশে তাণ্ডব চালাচ্ছেন, উল্লেখ করে হানিফ বলেন, ‘দেশের প্রতি, জনগণের প্রতি দায়িত্ববোধ থাকলে অবরোধের নামে সহিংসতা বন্ধ করুন। তা না হলে এর দায়ভার নিতে হবে।’
কিছু বুদ্ধিজীবী সংলাপের কথা বলে বিএনপির সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডকে আড়াল করার চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের এই নেতা। তিনি বুদ্ধিজীবীদের উদ্দেশে বলেন, ‘যারা সন্ত্রাস করছে তাদের নিষেধ না করে, সংলাপ সংলাপ বলে সরকারকে চাপ দেওয়ার চেষ্টা করছে। তাঁদের কাছে জাতি এমনটা আশা করে না। বিএনপির মনে রাখা উচিত, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড দিয়ে কোনো দাবি আদায় করা যাবে না।’

‘বর্তমান সহিংস কর্মকাণ্ডের জন্য বিএনপি দায়ী নয়’—বিএনপির নেতাদের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘তাঁরা যদি এ কর্মকাণ্ডের জন্য দায়ী না হন, তাহলে তাঁদের সঙ্গে কী জন্য সংলাপ? বর্তমানে দেশে সংকট হচ্ছে পেট্রলবোমা মেরে মানুষ হত্যা, গাড়িতে আগুন দেওয়া। এগুলো যদি তাঁরা না–ই করে থাকেন, তাহলে তাঁদের সঙ্গে সংলাপ কিসের জন্য? এ পর্যন্ত ৭২ জন মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। এটা পৈশাচিক কর্মসূচি ছাড়া আর কিছুই নয়।’

সংবাদ সম্মেলন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, দলের কৃষিবিষয়ক সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন নাহার, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক বদিউজ্জামান ভূইয়া, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এনামুল হক, সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন