default-image

গত বছরের মতো এবারও করোনার প্রভাবে দুর্গত, অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ। রমজানের প্রথম ১২ দিনে সারা দেশে ৬ লাখ মানুষের ঘরে খাদ্যসহায়তা পৌঁছে দিয়েছেন সংগঠনটির নেতা-কর্মীরা। গত বছর ৪৪ লাখ মানুষকে সহায়তা দিয়েছিল যুবলীগ।

অসহায় মানুষের সেবায় এ কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে আজ বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় যুবলীগ। এতে বলা হয়, করোনা মহামারির সংকটে মানুষের স্বাভাবিক জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। জীবন রক্ষার্থে সরকার লকডাউন ঘোষণা করেছে। যার ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছে মানুষ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ ও সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খানের আহ্বানে সারা দেশে যুবলীগের নেতা–কর্মীরা খাদ্য ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করছেন।

বিজ্ঞাপন

যুবলীগ জানায়, সারা দেশে যুবলীগের উদ্যোগে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ, ফ্রি টেলিমেডিসিন সেবা চালু করা হয়েছে।

শ্রমিকসংকটে কৃষক যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সে জন্য নেতা-কর্মীরা অসহায় কৃষকের পাকা ধান কেটে তাঁদের ঘরে তুলে দিচ্ছেন। গত বছর মানুষ যখন লাশ দাফন করায় ভয় পেয়েছে, তখন দাফনের দায়িত্বও পালন করেছেন যুবলীগের নেতা-কর্মীরা।

এ বিষয়ে যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস বলেছেন, মহাসংকটে যুবলীগ এখন মানবিক সংগঠনে পরিণত হয়েছে। খাদ্যসহায়তা, ফ্রি চিকিৎসাসেবা প্রদান থেকে লাশ দাফন করা পর্যন্ত কাজের সঙ্গে যুবলীগ নেতা-কর্মীরা সম্পৃক্ত রয়েছেন। যত দিন এই করোনার মহাসংকট দূর না হবে, তত দিন পর্যন্ত যুবলীগের ত্রাণ ও খাদ্যসহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

যুবলীগের নেতারা বলেন, রমজানের প্রথম দিন থেকেই লকডাউন চলছে। আর ওই দিন থেকেই ইফতার ও খাদ্যসহায়তা কার্যক্রম শুরু করেন সংগঠনটির নেতা-কর্মীরা।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন