১৪ বছর পর বরগুনার আমতলী উপজেলা ছাত্রদলের আংশিক কমিটি ঘোষণা করার পর পদবঞ্চিত নেতা ও কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তাঁরা ঘোষিত কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করেছেন।
পদবঞ্চিতদের অভিযোগ, ছাত্রদলের ত্যাগী নেতা-কর্মীদের বাদ দিয়ে জেলা ছাত্রদলের নেতারা যাঁদের নিয়ে পকেট কমিটি করেছেন, তাঁদের কারোরই নেতৃত্ব দেওয়ার যোগ্যতা নেই। এ জন্য তাঁরা ঘোষিত কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করেছেন।
ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা জানান, ২০০১ সালের প্রথম দিকে আমতলী উপজেলা ছাত্রদলের সর্বশেষ সম্মেলন হয়। এরপর ১৪ বছর অতিবাহিত হয়ে গেলেও ছাত্রদলের কোনো কমিটি হয়নি। ২০১৩ সালের মার্চে উপজেলা ছাত্রদলের সম্মেলন হয়। তবে ওই সময় কমিটি ঘোষণা করা হয়নি।
গত বৃহস্পতিবার বরগুনা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কে এম সফিকুজ্জামান ও যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মুরাদুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মো. আবু সাইদ জুবেরীকে সভাপতি, এম এ রাজ্জাককে জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি, মো. মেহেদী হাসানকে সাধারণ সম্পাদক, এ বি এম জাকারিয়াকে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও মো. ইমরানকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে আমতলী উপজেলা ছাত্রদলের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। একইভাবে আমতলী পৌর শাখা ছাত্রদলের আংশিক কমিটিও ঘোষণা করা হয়। এতে ইশরাত শাহ সভাপতি, এস এম আরিফুর রহমান জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি, মেহেদী হাসান সাধারণ সম্পাদক, শামীম মিয়া যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কাওসার শিকদারকে সাংগঠনিক সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে ৬১ সদস্যবিশিষ্ট উপজেলা ও পৌর কমিটির অবশিষ্ট ৫৬ জনকে অন্তর্ভুক্ত করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি জেলা কমিটিতে জমা দিয়ে অনুমোদন নেওয়ার জন্য নবগঠিত কমিটির নেতাদের অনুরোধ করা হয়।
এদিকে এ কমিটি ঘোষণার খবরে আমতলীতে ছাত্রদলের পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা রিবাজ করছে। তাঁরা এ কমিটিকে পকেট কমিটি বলে প্রত্যাখ্যান করেছেন। তাঁদের অভিযোগ, যাঁরা বিগত দিনে আন্দোলন সংগ্রাম করে মামলার আসামি হয়েছেন ও জেল খেটেছেন, তাঁদের মূল্যায়ন করা হয়নি।
পদবঞ্চিত আগের উপজেলা কমিটির সদস্য মো. আরিফ হোসেন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘নতুন কমিটিতে যাঁদের নাম রয়েছে তাঁদের অনেকেরই ছাত্রত্ব নেই। আমরা এই কমিটি প্রত্যাখ্যান করেছি।’ নবগঠিত উপজেলা কমিটির জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি এম এ রাজ্জাক বলেন, এই কমিটির কারও নেতৃত্ব দেওয়ার যোগ্যতা নেই। এটা জেলা নেতাদের মনগড়া পকেট কমিটি।
নবগঠিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান বলেন, ‘বরগুনা জেলা কমিটি আমতলী উপজেলা ছাত্রদলের নতুন কমিটি অনুমোদন করে যে চিঠি দিয়েছে, শুক্রবার তা হাতে পেয়েছি। ছাত্রদলকে সুসংগঠিত করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করব।’ জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক সফিকুজ্জামান বলেন, নতুন কমিটি হয়েছে। এতে কিছু ক্ষোভ থাকতেই পারে। পূর্ণাঙ্গ কমিটি হলে সব ঠিক হয়ে যাবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0