default-image

হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব শ্যামাপূজা (কালীপূজা) ও দীপাবলি উৎসব আজ শনিবার। সাধারণত কার্তিক মাসের অমাবস্যা তিথিতে শ্যামাপূজা অনুষ্ঠিত হয়। করোনা মহামারির কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবার পূজা অনুষ্ঠিত হবে। একই সঙ্গে আজ সন্ধ্যায় ঘরে ঘরে প্রদীপ জ্বালানোর মধ্য দিয়ে উদ্‌যাপিত হবে দীপাবলি উৎসব।

কালীপূজার দিন সন্ধ্যায় হিন্দুধর্মাবলম্বীরা তাঁদের বাড়িতে ও শ্মশানে প্রদীপ প্রজ্বালন করে স্বর্গীয় পিতা–মাতা এবং আত্মীয়স্বজনকে
স্মরণ করেন।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে শ্যামা হচ্ছেন শক্তির প্রতীক। তাঁরা বিশ্বাস করেন, সব অন্ধকার দূর করে শ্যামা মা জগতে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠা করেন। আর দীপাবলি অর্থ আলোর উৎসব। এই উৎসব অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে শুভশক্তির বিজয় ঘোষণা করে।

বিজ্ঞাপন

ঢাকার রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সন্যাসী স্বামী দেবধ্যানানন্দ জানান, রাত ৯টা ৩০ মিনিটে এখানে পূজা আরম্ভ হবে। রাত ৩টা ৪৫ মিনিটে পুষ্পাঞ্জলি প্রদান এবং রাত ৪টায় হোম (যজ্ঞ) অনুষ্ঠিত হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ভক্তদের মধ্যে পুষ্পাঞ্জলি প্রদান করা হবে।

এ ছাড়া রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির, রমনা কালীমন্দির, সিদ্ধেশ্বরী কালীমন্দির, সবুজবাগের শ্রীশ্রী বরদেশ্বরী কালীমাতা মন্দির, পুরান ঢাকার বনগ্রামের রাধাগোবিন্দ জিউ ঠাকুর মন্দির, সূত্রাপুরের মালাকারটোলা বিহারীলাল জিউ মন্দির, নবাবপুরের নবেন্দ্রনাথ বসাক লেন, পোস্তগোলা মহাশ্মশান, তাঁতীবাজার, শাঁখারীবাজার, বাংলাবাজারসহ বিভিন্ন মণ্ডপ ও মন্দিরে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্যামাপূজা
অনুষ্ঠিত হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0