টসে জিতে আজ আগে ব্যাটিংয়ে নেমেই আক্রমণাত্মক ছিলেন মোহামেডানের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান রনি তালুকদার ও পারভেজ হোসেন। রনি ৩৪ বলে ৩১ রান করে আউট হলেও পারভেজের ব্যাট থেকে এসেছে ৬৮ বলে ৭৬ রান। ১১১ স্ট্রাইক রেটের ইনিংসে ছিল ৭টি চার ও ৪টি ছক্কা। সমান গতিতে রান তুলেছেন লঙ্কান ব্যাটসম্যান কুশল মেন্ডিস। ৯১ বল খেলে তিনিও ৭টি চার ও ৪টি ছক্কায় ১০১ রান করে মোহামেডানের ৩০০–এর ভিত গড়ে দেন। বাকি কাজটা করেন মাহমুদউল্লাহ। টি-টোয়েন্টি মেজাজে খেলে ৪৭ বলে ৭০ রান করেন মোহামেডান অধিনায়ক। ৫ চার ও ৪ ছক্কায় এবারের লিগে নিজের সেরা ইনিংসটি সাজিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ।

রূপগঞ্জের ব্যাটিংয়ে ধস নামান মোহামেডানের বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম। ১০ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে ৫ উইকেট নিয়েছেন তিনি। নাঈম হাসান ৮০ রান করে রূপগঞ্জের হয়ে একাই লড়েছেন। তাঁর ইনিংসে ভর করেই রূপগঞ্জের রান ২০০ ছাড়ায়।

default-image

৩০০ রান হয়েছে বিকেএসপির ৪ নম্বর মাঠেও। ব্রাদার্স ইউনিয়ন ও খেলাঘরের ম্যাচে আগে ব্যাটিং করে ৫ উইকেটে ৩০৬ রান করেছিল ব্রাদার্স। আমিনুল ইসলাম ৮৮ ও ধীমান ঘোষ করেন ৮৯। ব্রাদার্সের বিদেশি ক্রিকেটার চতুরাঙ্গা ডি সিলভা ১০ বলে ৩০ রান করে রান ৩০০ ছাড়াতে সাহায্য করেন।

খেলাঘর হাল ছাড়েনি। ব্যাটসম্যানদের সম্মিলিত চেষ্টায় শেষ পর্যন্ত ২৯৩ রানে থামে তারা।উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান প্রীতম কুমার ৭২ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন। তবে দলটির জয়ের আশা বাঁচিয়ে রেখেছিল ইলিয়াস সানি ও ইফতেখার সাজ্জাদ। ৬৬ বলে ৬২ রান করে শেষ পর্যন্ত লড়াই করে গেছেন সানি। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়া ইফতেখার করেছেন ২৮ রান। শেষ ওভারে জয়ের জন্য খেলাঘরের দরকার ছিল ১৪ রান। আবু হায়দারের করা শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলেই বোল্ড হন ইফতেখার। শেষ পর্যন্ত ১৩ রানে জিতেছে ব্রাদার্স। ব্রাদার্সের হয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নিয়েছেন বাঁহাতি স্পিনার সাকলাইন সজীব।

default-image

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে শেখ জামাল তাদের দাপট অব্যাহত রেখেছে সিটি ক্লাবকে হারিয়ে। আগে ব্যাটিং করে ৪৬.২ ওভারে ১৯৭ রানে সব উইকেট হারালেও বোলিং দিয়ে ৫৩ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ঢাকা লিগের পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা শেখ জামাল। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিন ইমরুল কায়েসের ব্যাট থেকে এসেছে গুরুত্বপূর্ণ ৬১ রান।

সিটি ক্লাবের কোনো ব্যাটসম্যানই অর্ধশত করতে পারেননি। বরাবরের মতো আজও দলটির অধিনায়ক জাওয়াদ রোয়েন একা লড়ে করেছেন সর্বোচ্চ ৪৫ রান। শেষ পর্যন্ত সিটি ক্লাব ৪৩.১ ওভার খেলে অলআউট হয়েছে ১৪৪ রানে। রবিউল ইসলাম নিয়েছেন সর্বোচ্চ ৩ উইকেট। ম্যাচসেরা হয়েছেন ইমরুল।

প্রিমিয়ার লিগের লিগ পর্বে ১০ ম্যাচ খেলে ৯ জয়ে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে শেখ জামাল এখন বাকিদের ধরাছোঁয়ার বাইরে। ১৪ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ও আবাহনী। স্বভাবতই শেখ জামাল এখন প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখছে। দলটির উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সে কথাই বলছিলেন, ‘সুপার লিগে যদি আমরা ভালো খেলি, তাহলে আমাদের খুব ভালো সুযোগ আছে শিরোপা জয়ের। আর আমরা একটা দল হয়ে খেলছি। এটা বড় ব্যাপার। আমাদের দলে বড় তারকা নেই কিন্তু দল হিসেবে খেলায় আমরা ভালো করতে পারছি। আশা করি, এটা সুপার লিগেও ধরে রাখতে পারব।’

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন