বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইউটিউবে পোস্ট করা এক ভিডিওতে হরভজন বলেছেন, ‘বেশ কিছু দিক দিয়ে চিন্তা করলে ক্রিকেটার হিসেবে আমি আগেই অবসর নিয়ে ফেলেছি। তবে আনুষ্ঠানিক ঘোষণাটা দেওয়া হয়ে ওঠেনি। বেশ কিছু দিন ধরেই খেলছি না। তবে কলকাতা নাইট রাইডার্সের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ ছিলাম, (২০২১) আইপিএল মৌসুমটা তাদের সঙ্গে কাটাতে চেয়েছি। অবশ্য মৌসুম চলার সময়ই অবসরের সিদ্ধান্তটা নিয়ে ফেলেছিলাম।’

১৯৯৮ সালে বেঙ্গালুরুতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক অভিষেক হয়েছিল হরভজনের। ২০০১ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেই দেশের মাটিতে বিখ্যাত টেস্ট সিরিজে ৩ ম্যাচে সর্বোচ্চ ৩২ উইকেট নিয়েছিলেন হরভজন। কলকাতায় ফলোঅনের পরও ভারতের সেই জেতা ম্যাচে নিয়েছিলেন ১৩ উইকেট। ২০১৫ সালে খেলেছেন ১০৩ টেস্ট ক্যারিয়ারের সর্বশেষটি। গলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শেষ হওয়া টেস্ট ক্যারিয়ারে ৩২.৪৬ গড়ে ৪১৭টি উইকেট তাঁর। ভারতের হয়ে এ তালিকায় হরভজনের ওপরে আছেন অনীল কুম্বলে, কপিল দেব ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

default-image

২০১৫ সালেই হরভজন খেলেছেন সর্বশেষ ওয়ানডে। ২০০৩ সালে বিশ্বকাপ ফাইনালে রানার্সআপ ও ২০১১ সালে বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য হরভজন ২৩৬ ওয়ানডেতে নিয়েছেন ২৬৯ উইকেট। ২০১৬ সালে এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টিতে ভারতের হয়ে সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচটি খেলেছিলেন হরভজন। ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ী দলেরও সদস্য ছিলেন তিনি।

আইপিএলের ২০২০ মৌসুম থেকে ব্যক্তিগত কারণে নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার পর সর্বশেষ মৌসুমে খেলেছিলেন কলকাতার হয়ে। সব মিলিয়ে এ লিগে ১৬৩ ম্যাচ খেলে ১৫০টি উইকেট নিয়েছেন হরভজন। আইপিএলে পঞ্চম সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক তিনি।

ভিডিও বার্তায় ৪১ বছর বয়সী হরভজন বলেছেন, ‘জীবনের এমন সময় আসে, যখন আপনাকে কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়, সামনে এগিয়ে যেতে হয়। কয়েক বছর ধরেই এ ঘোষণা দিতে চাইছিলাম, তবে আপনাদের সঙ্গে এটা ভাগ করে নেওয়ার সঠিক মুহূর্তের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। আজ আমি সব ধরনের ক্রিকেট থেকে অবসর নিচ্ছি।’

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন