default-image

মনে যাই থাকুক, খেলোয়াড়েরা মুখে ‘প্রতিশোধ’ শব্দটি কমই উচ্চারণ করেন। জাভি সেই বিনয়ের ধার ধারলেন না। গত বছর কনফেডারেশনস কাপের ফাইনালে ব্রাজিলের কাছে ৩-০ গোলের হার স্প্যানিশ মিডফিল্ডার এখনো ভুলতে পারেননি। মনে জ্বলছে প্রতিশোধের আগুন। বিশ্বকাপে ব্রাজিলকে হারিয়ে সেই জ্বালা জুড়াতে চান জাভি। বার্সেলোনার স্প্যানিশ মিডফিল্ডার স্পষ্টই জানিয়ে দিলেন, প্রতিশোধের নেশা কাটছে না তাঁর।
এবারের বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়া, মেক্সিকো, ক্যামেরুনের সঙ্গে ব্রাজিল খেলবে ‘এ’ গ্রুপে। হল্যান্ড, চিলি, অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ‘বি’ গ্রুপে স্পেন। দুই দলের এক দল গ্রুপ রানার্সআপ হলেই দুই ফেবারিটের দেখা হয়ে যাবে দ্বিতীয় রাউন্ডে। তবে জাভি প্রতিশোধ নিতে চান ফাইনালে।
ফিফা ডট কমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জাভি বলেছেন, ‘আশা করি এবার আমরা প্রতিশোধ নিতে পারব। সেটি ফাইনালেই নয় কেন? অবশ্যই যেকোনো কিছু ঘটতে পারে। কারণ এটা বিশ্বকাপ এবং ড্রতে আমরা কঠিন একটা গ্রুপে পড়েছি। ব্রাজিলের গ্রুপও সহজ নয়। ফুটবল সব সময়ই আপনাকে প্রতিশোধ নেওয়ার সুযোগ দেয়। আশা করি ব্রাজিলকে হারিয়ে প্রতিশোধ নেওয়ার সুযোগ আমরা বিশ্বকাপে পাব। সেটি যত বেশি সম্ভব শেষের দিকে হলেই ভালো।’
জাভির মনে ভেসে ওঠে কনফেডারেশনস কাপের ফাইনালের বেদনার স্মৃতিও, ‘কনফেডারেশনস কাপের ফাইনালে সবকিছুই আমাদের বিপক্ষে গিয়েছিল। তবে ব্রাজিল ওই দিন খুব ভালো খেলেছিল। তার পরও বলব, বিশ্বকাপে ভালো করতে পুরো অভিজ্ঞতাই আমাদের সহায়ক হবে। স্বাগতিক দেশ হিসেবে চাপটা ব্রাজিলের ওপরই থাকবে।’
শেষ পর্যন্ত কী হয় সময়ই বলবে। স্পেনের জন্য এই বিশ্বকাপ কিন্তু অন্য রকম তাৎপর্য নিয়ে এসেছে। তৃতীয় দল হিসেবে টানা দুটি বিশ্বকাপ জয়ের সুযোগ সামনে। এর আগে বিশ্বকাপ ধরে রেখেছিল ইতালি (১৯৩৪, ১৯৩৮) ও ব্রাজিল (১৯৫৮, ১৯৬২)। স্পেন পারবে শিরোপা ধরে রেখে ইতালি-ব্রাজিলের পাশে নাম লেখাতে?
কোচ ভিসেন্তে দেল বস্ক, অধিনায়ক ইকার ক্যাসিয়াসের মতো জাভির চোখেও স্পেনের গ্রুপটা বেশ কঠিন। প্রথম প্রথম ম্যাচেই স্পেনের প্রতিপক্ষ গত বিশ্বকাপের রানার্সআপ হল্যান্ড। বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন-রানার্সআপ দলের একই গ্রুপে পড়ার ব্যাপারটা মাথায়ই ঢুকছে না জাভির, ‘গত বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ এবার কিনা গ্রুপ ওপেনার! জানি না ড্রটা কীভাবে হয়।’ ওয়েবসাইট।

বিজ্ঞাপন
খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন